এক সপ্তাহের ব্যবধানে সব ধরনের পণ্যের দাম উর্ধ্বমুখী

0

করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে আগামী ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এ অবস্থায় রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে এক সপ্তাহের ব্যবধানে আবারো কেজিতে চালের দাম বেড়েছে ৬ থেকে ৭ টাকা। আর প্রতি বস্তায় বেড়েছে ২ শ’ থেকে আড়াই শ’ টাকা। পেঁয়াজ কেজিতে বেড়েছে পাঁচ থেকে সাত টাকা। আর প্রতি ডজনে ডিমের দাম বেড়েছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। এছাড়া ডালসহ সব ধরনের পণ্যের দামও উর্ধ্বমুখী। করোনা আতঙ্কে মানুষ বেশি কেনাকাটা করে মজুদ করছে। তাই চাহিদা বেশি থাকায় দাম বেড়েছে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের।

করোনা ভাইরাস আতঙ্কে বেড়েই চলছে নিত্যপণ্যের দাম। সব ধরণের চাল কেজিতে বেড়েছে ৭ থেকে ৮ টাকা। আর বস্তা প্রতি ২ শ থেকে আড়াই শ টাকা । পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা কেজি । বাজারের এই উর্ধ্বমুখী দামে সবচেয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে পড়ছে শহরের খেটে খাওয়া মানুষ । চাহিদা বেশি হওয়ায় দাম বাড়িয়েছে অসাধু ব্যবসায়ীরা । তাদের দাবি, প্রয়োজনের তুলনায় ৩ থেকে ৪ গুণ কিনে মজুত করছে ক্রেতারা। তাই আমদানি ঘাটতি দেখা দেয়ায় দামও বাড়তি ।

এদিকে খুচরা বাজারে আমদানি করা রসুন কেজিতে ১৮০ থেকে ২০০ টাকা , আদা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা, পাশাপাশি বেড়েছে সয়াবিন তেলের দাম। এখন বিক্রি হচ্ছে প্রতি লিটার ১১৫ থেকে ১২০ টাকা । ডালসহ সব ধরণের মুদি পণ্য কেজিতে বেড়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা পর্যন্ত দেশের এই দুর্যোগময় সময়ে পণ্যসামগ্রী বেশিদামে বিক্রি থেকে বিরত থাকতে জোর মনিটরিং এর দাবি ক্রেতাদের।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন