উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ

0

ভঙ্গুর রক্ষণের পরও উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। কোয়ার্টারের প্রথম লেগে লিভারপুলকে ৩-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছে লস ব্লাঙ্কোরা। জোড়া গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়াস জুনিয়র। জিতেছে ম্যানচেস্টার সিটিও। ফিল ফোডেনের শেষ মুহর্তের স্কোরে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েছে সিটিজেনরা।

৩ বছর পর মধুর প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগ পেয়েও পারলো না লিভারপুল। এবার রক্ষণের ভুলে আসর থেকে ছিটকে যাবার শঙ্কায় জার্গেন ক্লপের দল। ২০১৮র চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের
যে দলটাকে হারিয়ে শিরোপা উৎসব করেছিলো, সে লিভারপুলকেই আবারও হারের তৃক্ত স্বাদ দিয়ে শিরোপা রেসে আরও একধাপ এগিয়ে গেলো রিয়াল মাদ্রিদ।

অথচ ঘরের মাঠে রক্ষণের দুই কান্ডারি সার্জিও রামোস আর রাফায়েল ভারানকে ছাড়াই এদিন নেমেছিলো রিয়াল মাদ্রিদ। তবে সে সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি লিভারপুল। উল্টো ২৭ মিনিটে ভিনিসিয়াসের গোলে পিছিয়ে পরে ইংলিশ ক্লাবটি।

বিরতির আগেই ব্যবধান বাড়ে। টনি ক্রোসের বাড়ানো বল ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ অলরেড ডিফেন্স। যে সুযোগে ব্যবধান বাড়ান মার্কো আসেনসিও।

দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ২০ মিনিট যেনো স্বরূপে ফিরেছিলো লিভারপুল। ৫১ মিনিটে মোহামেদ সালাহর গোলে নতুন স্বপ্ন বোনে লিগ চ্যাম্পিয়নরা। তবে তা ভাঙতেও সময় নেয়নি। ৬৫ মিনিটে নিজের জোড়া গোল পূরণ করেন ভিনিসিয়াস, সেই সাথে অ্যানফিল্ডে ৩-১’র পাহাড় ডিঙানোর চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন অলরেডদের।

কোয়ার্টারের আরেক ম্যাচ উজ্জ্বল ম্যান সিটি। ঘরের মাঠে সিটিজেনদের গোলের জন্য অপেক্ষা মাত্র ১৯ মিনিটের। রিয়াদ মাহরেজের কাট ব্যাক থেকে লিড এনে দেন কেভিন ডি ব্রুইনা।

এরপর একাধিক সুযোগ এসেছিলো দু’দলের সামনে। তবে, ৮৪ মিনিটে লাইফলাইন পায় বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। হালান্ডের পাস ধরে ডি বক্সে ঢুকে ডাই বুরুশেনদের সমতায় ফেরান মার্কো রয়েস।

ম্যাচ যখন নিশ্চিত ড্রয়ের পথে, ঠিক তখন স্পট লাইটে ফিল ফোডেন। ৯০ মিনিটে ইংলিশ ফরোয়ার্ডের গোলে স্বস্তি ফিরে সিটিজেন শিবিরে। যদিও ডর্টমুন্ডের অ্যাওয়ে গোলের সুবিধায় ফিরতি লেগে কিছুটা হলেও চাপে থাকবে ম্যান সিটি।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন