ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা মানুষের চাপ বেড়েছে ফেরি ঘাটে

0

ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা মানুষের চাপ বেড়েছে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া ফেরি ঘাটে। সেই সাথে বাড়ছে ব্যক্তিগত গাড়ির চাপও। সকালে ঝড়ো হাওয়া আর ভারি বৃষ্টির কারনে, যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হয়। কোথাও কোথাও ঘাট এলাকা পানিতে তলিয়ে গেলে বাড়তি কষ্ট পেতে হয় তাদের।

দেশের পশ্চিমাঞ্চলে ঈদ করতে যাওয়া মানুষ ঢাকায় ফিরতে শুরু করায়, সকাল থেকেই রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে হালকা যানবাহন ও যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। হাজারো যাত্রীর পাশাপাশি পার হচ্ছে শত শত ব্যক্তিগত গাড়ি। এছাড়া পারের অপেক্ষায় রয়েছে শতাধিক ব্যক্তিগত গাড়ি। বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তা জানান, এই রুটে ছোট বড় মিলে ৬টি ফেরি দিয়ে যনাবাহন ও যাত্রীদের পারাপার করা হচ্ছে।

দৌলতদিয়ার উল্টো পাশে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ফেরি ঘাটেও সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হালকা যানবাহন ও যাত্রীদের চাপ বাড়ছে। বিআইডব্লিউটিসি আরিচা সেক্টরের ডিজিএম জিল্লুর রহমান জানান, যানবাহন ও যাত্রীদের চাপ বাড়ায়, ১৫টি ফেরির মধ্যে ৯টি ফেরি পারাপারের কাজ করছে। প্রয়োজনে ফেরি আরও বাড়ানোর কথা জানান তিনি। ফিরে আসা যাত্রীরা জানান, তাদের সমস্যার কথা।

সকাল থেকেই ঝড়ো বাতাস, বৃষ্টি ও বজ্রপাতে এক ঘন্টা বন্ধ থাকার পর স্বাভাবিক হয় মাদারীপুরের কাঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল। তবে ঘাটে দুর্ভোগ পোহাতে হয় যাত্রীদের। লঞ্চ ও সীবোট বন্ধ থাকায় সবাই ফেরিতে পারাপার হওয়ায় মানা যায়নি করোনার স্বাস্থ্যবিধি। বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাটের কর্মকর্তা আলিম মিয়া জানান, ১০টি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে।

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ঘাট থেকে কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে সীমিত আকারে ফেরি চলাচল করে। বিআইডব্লিউটিসির ঘাট কর্মকর্তা জানান, ভোর ৬টায় হঠাৎ ঝড়ে পদ্মা উত্তাল হয়ে উঠলে, ফেরি সার্ভিস বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে সকাল ৮টায় আবার সীমিত আকারে সচল হয়। ৪টি রো রো ফেরিসহ ৬টি ফেরি দিয়ে সার্ভিস সচল রাখা হয়েছে। তিনি জানান, পদ্মা উত্তাল থাকায় সময় লাগছে বেশি।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন