আগামীকাল পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর

0

আগামীকাল পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রেধে সরকারের দেয়া নির্দেশনায় এবার সারাদেশে ঈদ গাঁ বা খোলা মাঠে অনুষ্ঠিত না হয়ে মসজিদে ঈদের জামাত হবে। রাজধানীতে প্রধান ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে । এদিকে, সৌদী আরবের সাথে মিল রেখে চট্টগ্রাম, বরিশাল, দিনাজপুর, জামালপুর, মৌলভীবাজার, পাবনা, মাদারীপুর, মুন্সিগঞ্জ ও চাঁদপুরের বিভিন্ন গ্রামে আজ ঈদ-উল-ফিতর উদযাপিত হয়েছে।

দেশের আকাশে শনিবার শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সোমবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে সরকারের নির্দেশনায় এবার সারাদেশে ঈদ গাঁ-সহ খোলা মাঠে হবে না ঈদের জামাত। জাতীয় ঈদ গাঁ-এর পরিবর্তে রাজধানীতে ঈদের প্রধান জামাত হবে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে। এখানে সকাল ৭টা থেকে পৌনে ১১টা পর্যন্ত ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে, সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে দক্ষিণ চট্টগ্রামের ৭টি উপজেলার ৬০টি গ্রামে উদযাপন করা হয়েছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার মির্জারখীল দরবার শরীফ, চন্দনাইশ উপজেলার শাহছুফি মমতাজিয়া দরবার শরীফের অনুসারীরা বেশকিছু এলাকায় ঈদের জামাতে অংশ নেন।

বরিশালের ৬টি উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উদযাপিত হয়েছে। বাবুগঞ্জ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের প্রায় ২ হাজার, হিজলা, মেহেন্দিগঞ্জ, মুলাদী, বাকেরগঞ্জের সুন্দরকাঠী, মহানগরীসহ সদর উপজেলার প্রায় ৫ হাজার অনুসারী ঈদ উদযাপন করেছে।

দিনাজপুরের সদর, চিরিরবন্দর, পার্বতীপুর ও কাহারোল উপজেলার কয়েকটি এলাকায় কোন ধরনের স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই ঈদুল ফিতর উদযাপন করছে প্রায় ২ হাজার পরিবার। সকাল সাড়ে ৮টায় দিনাজপুর শহরের বাসুনিয়াপট্টির একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত ঈদের জামাতে অংশ নেন প্রায় দু’শ মুসল্লী।

জামালপুরের সরিষাবাড়ি উপজেলার ১০টি গ্রামে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। সকাল ৭টায় পৌরসভার বলারদিয়া এলাকায় এই ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

মৌলভীবাজারের কয়েকটি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল সাড়ে ৭টায় মৌলভীবাজার শহরের সার্কিট হাউস এলাকার আহমেদ শাবিস্তা বাসার ছাদে অনুষ্ঠিত ঈদ জামাতে কয়েকশ নারী-পুরুষ অংশ নেয়।

পাবনার সুজানগর উপজেলার বদনপুর গ্রামে ঈদুল ফিতর উদযাপন করেছে অন্তত ৪০টি পরিবার। সকাল দশটায় বদনপুর নকিবীয়া দরবার শরীফে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

মাদারীপুরের ৪০ গ্রামের সুরেশ্বরীর প্রায় ৩০ হাজার ভক্ত অনুসারী উদযাপন করেছে ঈদুল ফিতর। এবার করোনা ভাইরাস সংক্রমনের কারনে এলাকার দুটি মসজিদে সকাল ১০টায় একই সাথে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

মুন্সীগঞ্জের ১৭ টি গ্রামে ঈদ উদযাপন করেছে কয়েক’শ পরিবার। সকাল ১০টায় সিরাজদিখান উপজেলার মালখানগর গ্রামে মাদবর বাড়িতে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

চাঁদপুরের ৫০টি গ্রামে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হয়েছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। হাজীগঞ্জের সাদ্রা দরবার শরীফ জামে মসজিদে সকাল ১০টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন