হালখাতা ও বৈশাখি উৎসব উদযাপন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড

0

বকেয়া কর আদায়ে রাজস্ব হালখাতা ও বৈশাখি উৎসব উদযাপন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। ব্যতিক্রমধর্মী এই উদ্যোগ– করদাতা ও গ্রহীতার মধ্যে দূরত্ব কমাবে বলে আশা রাজস্ব বোর্ড কর্মকর্তাদের। রাজধানীতে হালখাতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক জানান, নতুন প্রজন্ম কর দিতে প্রস্তুত, কিন্তু তাদের কাঙ্খিত সেবা দিতে হবে। আর এনবিআর চেয়ারম্যান জানান, করের জাল এমনভাবে বাড়াতে হবে, যাতে দাতাদের মধ্যে ভীতি না থাকে।

জ্ঞানভিত্তিক আলোকিত সমাজ বিনির্মাণের মাধ্যমে সমৃদ্ধ রাজস্ব-সংস্কৃতির বিকাশ-শ্লোগানে ঢাকাসহ সারাদেশে দ্বিতীয়বারের মতো রাজস্ব হালখাতা ও বৈখাখি উৎসব পালন করছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। এ উপলক্ষ্যে, কর অঞ্চলগুলোকে সাজানো হয় বর্ণিল সাজে। হালখাতার আদলে করদাতাদের জন্য অপ্যায়নের ব্যবস্থাও করা হয়।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানের মতে, রাজস্ব ঘাটতি থাকলে উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না। তাই জিডিপির ৯ থেকে ১৫ ভাগে উন্নীত করতে হবে রাজস্ব আদায়। এজন্য নানা উদ্যোগ নেয়ার কথাও জানান তিনি।

তবে রাজস্ব আদায় বাড়াতে করদাতাদের হয়রানি বন্ধ করতে হবে বলে জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

হালখাতায় বকেয়া কর পরিশোধের পাশাপাশি আগাম করও দিচ্ছে কেউ কেউ। গতবছর হালখাতায় সারাদেশ থেকে রাজস্ব আয় হয়, ৫৬৬ কোটি টাকা।

 

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন