হরিরঞ্জন দাসকে বেপরোয়াভাবে মারপিট করেছে সেসিপ প্রকল্পের আঞ্চলিক পরিচালক

0

খুলনায় উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মচারি হরিরঞ্জন দাসকে রুমে ডেকে নিয়ে বেপরোয়াভাবে মারপিট করেছে সেসিপ প্রকল্পের আঞ্চলিক পরিচালক হারুনুর রশিদ। এছাড়া, ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়েও উপ-পরিচালকের রুমের সামনে আবারও মারপিট করে অপহরণের চেষ্টা করেন তিনি। বৃহষ্পতিবার দুপুরে নগরীর বয়রাস্থ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত হরিরঞ্জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর ঘটনার সুষ্ঠ ও ন্যায় বিচারসহ কর্মকর্তা হারুনুর রশিদের শাস্তির দাবেতে থানায় জিডি করা হয়েছে।

খুলনা উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালকের বয়রা কার্যালয়ের একটি কক্ষে শিক্ষা অধিদপ্তরের সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেষ্টমেন্ট অস্থায়ী প্রকল্প সেসিপ আঞ্চলিক পরিচালক হারুনুর রশিদের অফিস। অস্থায়ী এ প্রকল্পে দু’জন কর্মচারি থাকলেও প্রভাব খাটিয়ে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের তার কাজে ব্যবহার করেন তিনি। বৃহষ্পতিবার দুপুরের দিকে অফিস চলাকালীন সময়ে শিক্ষা অধিদপ্তরের সুইপার হরিরঞ্জন দাসকে নিজের রুমে ডেকে নিয়ে বাথরুম পরিষ্কার না করার অজুহাতে তাকে বেদম মারপিট করেন। পরে সে উপপরিচালকের কাছে অভিযোগ দিতে গেলে হারুনুর রশিদ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে উপ-পরিচালকের কক্ষেও মারপিট করান। পরে হরিরঞ্জন দাসকে খুলনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করে সোনাডাঙ্গা থানায় জিডি করায় হাসপাতাল ছেড়ে যাওয়ার হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তার স্ত্রী।
এদিকে, অভিযুক্ত অস্থায়ী প্রকল্পের আঞ্চলিক পরিচালক হারুনুর রশিদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণে বিভাগীয় কমিশনারসহ সংশ্লিষ্টের লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে জানালেন উপ-পরিচালক। এদিকে, আহত কর্মচারীর নিরাপত্তা দেয়াসহ অভিযুক্ত আঞ্চলিক পরিচালকের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন অধিদপ্তরের সর্বস্তরের কর্মচারীরা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন