সুপ্রিমকোর্টে মামলা করতে গেলে ১৭ থেকে ১৮টি জায়গায় ঘুষ দিতে হয়

0

সুপ্রিমকোর্টে মামলা করতে গেলে ১৭ থেকে ১৮টি জায়গায় ঘুষ দিতে হয়। এমন অভিযোগ করেছেন খোদ সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। তিনি বলেন, সর্বোচ্চ আদালতে দুর্নীতি থাকলে দেশের মানুষের ন্যায় বিচার নিশ্চিত সম্ভব নয়। এদিকে সুপ্রিমকোর্টের এফিডেভিট শাখার সব কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলীর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। এই সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এবং অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, এই সিদ্ধান্ত উচ্চ আদালতের দুর্নীতি কমাতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

ন্যায় বিচার প্রাপ্তিতে ১৬ কোটি মানুষের শেষ ভরসা এই সুপ্রিমকোর্ট। তবে বিচার চাইতে এসে পদে পদে হয়রানি এবং ঘুষ দিতে বাধ্য হওয়ার অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী বিচারপ্রার্থীরা। এমন পরিস্থিতিতে সিসি ক্যামেরা লাগিয়েও সুফল পায়নি সুপ্রিমকোর্ট প্রশাসন। মঙ্গলবার এফিডেবিট শাখার সব কর্মকর্তা কর্মচারীকে বদলির নির্দেশ দেন প্রধান বিচারপতির।

প্রধান বিচারপতির এই সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় গণমাধ্যমে নিজের মূল্যায়ন তুলে ধরেন অ্যাটর্নি জেনারেল। রাজধানীতে ভিন্ন একটি অনুষ্ঠানে এ বিষয়ে কথা বলেন আইনমন্ত্রী। বিচার বিভাগকে দুর্নীতি মুক্ত করতে আইনজীবীসহ সবার ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার কোন বিকল্প নেই বলেও মত দেন অ্যাডভোকেট আনিসুল হক।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন