সারাদেশে মোট চার জনের মৃত্যু হয়েছে ডেঙ্গুর আক্রমণে

0

রাজধানী ঢাকায় ৫ বছর বয়সী শিশু ও বাপেক্স কর্মকর্তাসহ সারাদেশে মোট চার জনের মৃত্যু হয়েছে ডেঙ্গুর আক্রমণে। তবে স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য বলছে, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৪৪ হাজার রোগীর মধ্যে এরই মধ্যে প্রায় ৮৩ শতাংশ হাসপাতাল ছেড়েছে। এই পরিসংখ্যান আশাব্যঞ্জক হলেও ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে মোটেও আশংকামুক্ত নন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। আর রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালিক বলেছেন, সারাদেশে সচেতনতা বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন করে ডেঙ্গু রোগী ভর্তির সংখ্যা কমছে।

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ৫ বছরের শিশু সামিয়া রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। আর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে মারা যান ডেঙ্গু আক্রান্ত বাপেক্সের প্রকৌশলী মাহবুল্লাহ হক।

বাপেক্স প্রকৌশলীর মৃত্যুর পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলে ডেঙ্গু রোগীদের অবস্থা পরিদর্শনে আসেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

নানামুখী চেষ্টার পরও কমছে না ডেঙ্গু’র প্রকোপ। হলিফ্যামিলী হাসপাতালে ২৪ ঘন্টার পরিসংখ্যান বলছে, মেডিসিন বিভাগে ভর্তি ১৪০ রোগীর মধ্যে ১৩৫ জনই ডেঙ্গু আক্রান্ত।

তবে কুর্মিটোলা, কুয়েত মৈত্রী ও সিএমএইচ পরিদর্শনে গিয়ে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডেঙ্গু পরিস্থিতি উন্নতির দিকে।

ঢাকার বাইরে, সোমবার সন্ধ্যায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রাসেলের মৃত্যু হয়। 

লক্ষ্মীপুরে ডেঙ্গু আক্রান্তের পর সোমবার রাত ৯টার দিকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যায় শিশু পরশ।

সাতক্ষীরায় মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ক্রিকেটার সৌম্যে সরকারের বাবা কিশোরী মোহন সরকারসহ ৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন