সারাদেশে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালন করা হয়েছে

0

দেশের উন্নয়নের অন্যতম শর্ত পরিকল্পিত পরিবার। তবে পরিবার পরিকল্পনা সম্পর্কে এখনো সচেতন নয়, দেশের জনসংখ্যার বড় একটি অংশ।

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসের সেমিনারে, একথা জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংখ্যা বিজ্ঞান বিভাগের সেমিনারে তিনি বলেন, এলাকাভেদে ১১ থেকে ১৭ ভাগ মানুষ পরিবার-পরিকল্পনা সম্পর্কে অসচেতন। যাদের বেশিরভাগের বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছর। সেমিনারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম, জনসংখ্যা বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাইনুল ইসলামসহ জাতিসংঘের জনসংখ্যা সংস্থার প্রতিনিধিরা আলোচনা করেন। এসময় তারা পরিকল্পিত পরিবারকে ‘সুরক্ষিত মানবাধিকার’ বলে উল্লেখ করেন।

পরিকল্পিত পরিবার গঠনের আহ্বান জানিয়ে– শোভাযাত্রাসহ নানা আয়োজনে সারাদেশে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালন করা হয়েছে।

সকালে বগুড়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক নূরে আলম সিদ্দিকী এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোকবুল হোসেন।

বাগেরহাটে স্বাধীনতা উদ্যান থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে– শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘোরে। পরে বাগেরহাট সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে আলোচনা ও শ্রেষ্ঠ ১৭ কর্মীর মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে, জয়পুরহাটে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা হয়েছে। সকালে পরিকল্পনা বিভাগের আয়োজনে, সদর উপজেলা পরিষদ থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা প্রধান সড়ক ঘুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

ভৈরবে “পরিকল্পিত পরিবার সুরক্ষিত মানবাধিকার” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে– পালিত হয়েছে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস। এ উপলক্ষ্যে সকালে শোভাযাত্রার পর, পরিবার পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ঝিনাইদহে জেলা প্রশাসন ও পরিবার পারিকল্পনা বিভাগের আয়োজনে কালেক্টরেট চত্ত্বর থেকে শোভাযাত্রা বের করা হয়। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা।

লালমনিরহাটে জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণ থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

নড়াইলে জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের আয়োজনে শোভাযাত্রা,আলোচনা সভা ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়।

নেত্রকোনায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হয় শোভাযাত্রা। পরে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায় ও পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম খান।

পঞ্চগড়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে শোভাযাত্রা বের করা হয়। পরে পঞ্চগড় সরকারি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা।

চাঁদপুর সাকির্ট হাউজ থেকে বের করা হয় শোভাযাত্রা। পরে জেলা প্রাশাসক মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন