সরাসরি সরকারীভাবে ধান বিক্রি করতে পেরে খুশী কুষ্টিয়ার কৃষকরা

0

কোন দালাল বা ফড়িয়া নয় সরাসরি সরকারীভাবে ধান বিক্রি করতে পেরে খুশী কুষ্টিয়ার কৃষকরা। তবে উৎপাদন খরচের চেয়ে কম দামে ধান বিক্রি করছে লটারীতে সুযোগ না পাওয়া অনেক কৃষক। তাই খোলাবাজারে সরকারি মূল্যে ধান ক্রয়ের দাবি তুলেছেন তারা।

এবার আমন মৌসুমে কুষ্টিয়ার ৬ উপজেলা ও ৫ পৌরসভায় আমন চাষীদের কাছ থেকে সরাসরি ১ হাজার ০৪০ মন দামে ধান ক্রয় করতে সব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, কৃষি অফিসার ও উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে লটারী কার্যক্রমের মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন কার্যক্রম শেষে ধান ক্রয় করা হচ্ছে। কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ১৬ হাজার কৃষকের মধ্যে লটারীর মাধ্যমে ২ হাজার ৫৭৫ জন কৃষককে নির্বাচন শেষে তাদের কাছ থেকে ধান ক্রয় শুরু হয়েছে। সরাসরি সরকারী ঘরে ধান বিক্রি করতে পেরে বেশ খুশি। এমন প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার দাবিও উঠেছে।

সদর উপলোর ১৬ হাজার কৃষকের মধ্যে লটারীতে সুযোগ পেয়েছেন মাত্র ২ হাজার ৫৭৫ জন। বাকি ১২ হাজার ৫শ কৃষককেই ৫০৬ টাকা মন দরে ধান বিক্রি করতে হবে।

কোন মধ্যস্বত্বভোগী যেন সুযোগ না নিতে পারে এবং দুর্নীতিমুক্ত করতে লটারীর মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন করা হয়েছে জানালেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক।

কৃষক যেন ধানের ন্যায্যমূল পায় সে জন্য সরকার এই পদ্ধতি গ্রহণ করেছে এবং এই প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে জানালেন কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন