সব গোয়েন্দা সংস্থার জন্য সমন্বিত কেন্দ্রীয় তথ্য কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব করেছে এনটিএমসি

0

জাতীয় নিরাপত্তা ও অপরাধী শনাক্তে দেশের সব গোয়েন্দা সংস্থার জন্য সমন্বিত কেন্দ্রীয় তথ্য কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব করেছে জাতীয় টেলিযোগাযোগ মনিটরিং সেন্টার-এনটিএমসি। সকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে এনটিএমসি’র সদর দফতর পরিদর্শন শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের পর এই সমন্বিত তথ্য কেন্দ্র হবে সব অপরাধ দমনের প্রধানতম সহায়ক। এরফলে প্রযুক্তি ব্যবহার করে কোনো অপরাধীই আর পার পাবে না বলে জানান এনটিএমসি পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান।

২০০৭ সালে ন্যাশনাল মনিটরিং সেন্টার – এনএমসি গঠিত হলেও বর্ধিত কলবরে, বিশাল কর্মতৎপরতা নিয়ে ২০১৩ সালের ৩১ জানুয়ারি এনটিএমসি নামে যাত্রা শুরু করে দেশের অন্যতম প্রধান পর্যবেক্ষণ সংস্থা। যার বর্তমান নাম ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার- এনটিএমসি।

সকালে সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে পরিদর্শনে আসেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠকে বসেন সব গোয়েন্দা সংস্থা প্রধানদের নিয়ে। সংস্থাটি ইতোমধ্যে, প্রধানমন্ত্রীর নামে ৭৫২টি এবং সেনাবাহিনী ও নৌবাহিনীর নামে প্রায় এক হাজার ভুয়া আইডি, পেজ ও গ্রুপ এবং নির্বাচন কমিশনের নামে ৮টি আইডি, ৩টি পেজ ও ১৪টি গ্রুপ বন্ধ করেছে। জঙ্গি তৎপরতায় ব্যবহৃত ১৪১টি ও ফেসবুক আইডিও বন্ধ করেছে সংস্থাটি। বলেন, জাতীয় নিরাপত্তা ও অপরাধী শনাক্তে সব আইনশৃংখলা বাহিনীকে একই প্লাটফর্মে নিয়ে আসার পরিকল্পনা করছে সরক। আলোচনার একপর্যায়ে সংস্থার পরিচালক তুলে ধরেন অপরাধ দমনে তাদের সক্ষমতার কথা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন