শরনার্থীদের নিয়ে কাজ করছেন কয়েকশ’ বিদেশী কর্মী

0

নিজভূমি থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গা শরনার্থীদের চিকিৎসা, আবাসন, খাদ্য আর কাউন্সিলিং নিয়ে কাজ করছেন কয়েকশ’ বিদেশী কর্মী। প্রাকৃতিক দুর্যোগ, যুদ্ধ-বিগ্রহ আর মানবিক বিপর্যয়ে মানবতার পাশে দাঁড়ানো যাদের নেশা। বৈরি পরিবেশেও কাজ করতে অভ্যস্ত মানবতাবাদী মানুষগুলোও রোহিঙ্গাদের উপর হামলা আর দীর্ঘ মেয়াদে জুলুম-নির্যাতনের কথা জেনে হতবাক তারা।

দাউ-দাউ করে জ্বলছে মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বাড়ি-ঘর। যাতে ছাই হয়েছে বিশ্বের সবচে’ ভাগ্যহত জাতি রোহিঙ্গাদের সুখ-স্বপ্ন। নির্মম হত্যার শিকার হয়েছে, কয়েক হাজার নারী-শিশুসহ মানুষ। এক মাসেই বাংলাদেশের শরনার্থী শিবিরে অশ্রয় নিয়েছে অন্তত পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা। প্রকাশ হয়েছে, কয়েক যুগের ধারাবাহিক নির্যাতনের ছবি।

শুরু থেকেই কয়েকশ’ বিদেশী কর্মী বিপন্ন রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়েছে। কেউ চাকরি করছেন, কেউ স্বেচ্ছায় শ্রম দিচ্ছেন, কোন সংস্থার মাধ্যমে। আবার কেউ কেউ নিজের সময় আর অর্থ উৎসর্গ করেছেন, নিস্পেষিত রোহিঙ্গাদের জন্য। আছে সাংবাদিকরাও। নির্যাতনের বাস্তবতায় অবাক সবাই। বিদেশি সেবকদের এদেশি সমন্বয়করাও জানে না, কতদিন আসবে উদ্বাস্তু। আর কবে শেষ হবে, নির্মমতার গল্প। নিপীড়িত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার জন্য, বাংলাদেশের মানুষ ও সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনগুলো।

শেয়ার করুন।