রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনে ভূমিকা রাখবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন

0

রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন। আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে এমনটাই জানান ইউরোপীয় ইউনিয়নের সফররত প্রতিনিধি অ্যামন গিলমোর। পাশাপাশি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য, ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টসহ বেশকিছু বিষয়ে উদ্বেগের কথাও জানান তিনি। জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার কারাবাসে কোন রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ নেই। আর সাইবার ক্রাইম ঠেকাতেই ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট করেছে সরকার।

যেখানে জীবনের তাগিদে সবুজ হারিয়েছে পাহাড়, আর প্রকৃতি হয়েছে বিষন্ন। ওপর থেকে কক্সবাজারের বালুখালি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দৃশ্য এটি। প্রায় দু’ বছর ধরে কক্সবাজারে বিভিন্ন শরনার্থী ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গারা কবে দেশে ফিরে যেতে পারবে সে বিষয়ে আজো নিশ্চুপ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

এমন বাস্তবতায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন সফররত ইউরোপিয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি। এরপর ইয়াঙ্গুনও যাবেন আয়ারল্যাণ্ডের সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী অ্যামন গিলমোর।

বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের মুখে এই দু’জন। শুরুতেই আসে রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ।

ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট নিয়ে ইইউর উদ্বেগের মুখে সরকারে অবস্থানও তুলে ধরেন আইনমন্ত্রী।

এরপর খালেদা জিয়ার কারবাস ও স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ জানান ইইউ প্রতিনিধি। এর জবাবও দেন আনিসুল হক।

অভ্যন্তরিণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ নয়, দেশে ফিরে তাকেও প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের মুখে এভাবেই আত্মপক্ষে যুক্তি দেন অ্যামন গিলমোর।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন