যত দ্রুত সম্ভব নুসরাত হত্যা মামলার বিচার শেষ করার উদ্যোগ

0

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে যত দ্রুত সম্ভব নুসরাত হত্যা মামলার বিচার শেষ করার উদ্যোগ নেবে আইন মন্ত্রণালয়। তিনি আরো বলেন, বিশ্বের বিচারিক ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ‘জাস্টিস অডিট সিস্টেম’ চালু করেছে বাংলাদেশ। উদ্দেশ্য, বিচারিক কার্যক্রমের তদারকি করে সাধারণ মানুষের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করা। রাজধানীর বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব জানান।

মূল্যবোধের অবক্ষয় এবং বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে দেশের বিচারিক আদালতে বাড়ছে ধর্ষণসহ নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার সংখ্যা। গণমাধ্যম সূত্রে, গেল ১৫ বছরে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে ৪ হাজার ২শ ৭৭টি। এরমধ্যে সাজা হয়েছে মাত্র ৩ শতাংশ আসামীর। আর ধর্ষণের মামলায় হাজারে সাজা হয় মাত্র ৪ জনের।

এমন বাস্তবতায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটরদের নিয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ কোর্সের আয়োজন করে আইন মন্ত্রণালয়। অনুষ্ঠান শেষে নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলায় সাজার হার বাড়াতে সরকারে নেয়া পদক্ষেপ নিয়ে কথা বলেন আইনমন্ত্রী।

এসময় বহুল আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলার দ্রুত নিষ্পত্তির আশ্বাসও দেন তিনি।

নুসরাতের মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী ৯২ জন, তাই এই মামলা দ্রুত শেষ করা সম্ভব কিনা সেই প্রশ্নের উত্তরও দেন আইনমন্ত্রী।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন