ময়মনসিংহে ৪ সিনেমা হলে বোমা হামলার ১৫ বছর আজ

0

ময়মনসিংহে ৪ সিনেমা হলে বোমা হামলার ১৫ বছর আজ। ২০০২ সালে এই দিনে জেএমবির বোমা হামলায় ১৭ জন নিহত ও দুই শতাধিক লোক আহত হয়। কিন্তু ১৫ বছরেও বোমা হামলার সঠিক বিচার না হওয়ায় হতাশ নিহত ও আহতের স্বজনরা। দ্রুত বিচার কাজ সম্পন্ন করার দাবি তাদের।

২০০২ সালের ৭ ডিসেম্বর ময়মনসিংহ শহরের ছায়াবানী, অজন্তা, অলকা ও পূরবী সিনেমা হলে বোমা হামলা করে জেএমবিরা। শক্তিশালী বোমা হামলায় ঘটনাস্থলেই ১০ জন ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৭ জনের মৃত্যু হয়। আহত হয় দু’শতাধিক। এ ঘটনায় সারাদেশে জারি করা হয় রেড এলার্ট।

এ হামলার সাথে জেএমবির সংশ্লিষ্টতার প্রমান পাওয়ার পর ২০০৭ সালের ৮ অক্টোবর অভিযোগ পত্র পেশ করে সিআইডি। পরে ঘটনার সাথে জড়িত জেএমবি’র আঞ্চলিক কমান্ডার নারায়ণগঞ্জের সালাউদ্দিন ওরফে সালেহিন, জাহেদুল ইসলাম ওরফে বোমা মিজান, আনোয়ার হোসেন ওরফে ভাগ্নে শহীদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে চার্জশিট দাখিল করা হয়। তবে এখনও বিচারকাজ শেষ না হওয়ায় নিহত ও আহতদের স্বজনদের মাঝে তৈরি হয়েছে হতাশা।

এ ঘটনায় দায়ের করা চারটি মামলা বিচারধীন রয়েছে। তিন আসামীর মধ্যে আনোয়ার হোসেন ওরফে ভাগ্নে শহীদ রয়েছে জেল হাজতে। আর বাকী দু’জনকে ২০১৪ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহ আদালতে আনার সময় ত্রিশালে প্রিজন ভ্যানে হামলা চালিয়ে ছিনিয়ে নেয়া হয়। তবে শিগিগিরই মামলার নিষ্পতি হবে বলে আশা করছেন সরকার পক্ষের আইনজীবী।

আহত এবং নিহতের পরিবারকে পৃষ্ঠপোষকতাসহ দোষিদের দ্রুত শাস্তির আওতায় এনে— ময়মনসিংহকে কলঙ্কমুক্ত করা হবে, এমনই প্রত্যাশা সবার।

শেয়ার করুন।