মোবারকগঞ্জ সুগার মিলে লক্ষমাত্রা পূরণ হয়নি

0

ঝিনাইদহের মোবারকগঞ্জ সুগার মিলে এ বছর চিনি উৎপাদনের লক্ষমাত্রা পূরণ হয়নি। তাই এবার বাড়বে লোকসানের বোঝা। মিল কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রাকৃতিক দুর্যোগ আর মিলের যান্ত্রিক ত্রুটিই উৎপাদন কম হওয়ার মূল কারণ। এ সমস্যা সমাধানে সুষ্ঠু কারখানা ব্যবস্থাপনা ও কৃষকদের সচেতনতা তৈরির আহ্বান সংশ্লিষ্টদের।

গত বছরের পহেলা ডিসেম্বর মিলটিতে শুরু হয় আখ মাড়াই। শুরুর পরদিনই বয়লারের ত্রুটিতে বন্ধ হয়ে যায় মিলটি। দু’দিন পর ফের চালু হলেও বেশ কয়েক বার মিল বন্ধ থাকে। দিনের পর দিন বন্ধ হওয়ার কারণে কারখানা প্রাঙ্গণে থাকা আখ শুঁকিয়ে যায়। এতে আখের চিনি রিকভারি হার কমে যায়। চলতি মৌসুম ৭ দশমিক ৫ ভাগ চিনির লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হলেও রিকভারী হয়েছে গড়ে মাত্র ৪ দশমিক ৩০ ভাগ। এতে গত বছরের চেয়ে লোকসানের পরিমান বাড়বে বলে আশংকা করছে মিল কর্তৃপক্ষ। এছাড়া, চলতি মৌসুমে তিন মাসের মধ্যে কারখানা বন্ধ ছিল তিন’শ ২১ ঘন্টা। যা চিনি রিকভারী বিপর্যয়ের অন্যতম কারণ।

মিল কর্তৃপক্ষ বলছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ, কারখানার অবকাঠামো আর কৃষকদের অবহেলা এ বিপর্যয়ের মূল কারণ।

পে-অফ: গত অর্থবছরে কারখানার লোকসানের পরিমান ছিল ২২ কোটি টাকা। এ বছর তা বেড়ে ২৫ কোটি টাকা হবে বলে আশংকা করছে মিল কর্তৃপক্ষ।

শেয়ার করুন।