মেঘনা নদীর তলদেশ থেকে একটি চক্র দীর্ঘ দিন ধরে অবাধে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে

0

চাঁদপুরের মেঘনা নদীর তলদেশ থেকে একটি চক্র দীর্ঘ দিন ধরে অবাধে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে। অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলনের কারণে নদীর তীরে দেখা দিয়েছে ভাঙন। হুমকির মুখে পড়েছে সেচ প্রকল্পের বাঁধ। মাঝে মাঝে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযান চালিয়ে বালু উত্তোলন কাজে ব্যবহৃত নৌ-যান জব্দ করা হয়। এরপরও মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ হচ্ছে না।

মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ উপজেলায় বয়ে যাওয়া মেঘনা নদীতে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করা হচ্ছে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অসংখ্য ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন ও বিক্রয় চলছে। দীর্ঘদিন যাবত বালু উত্তোলন অব্যাহত থাকায় সরকার বঞ্চিত হচ্ছে লাখ লাখ টাকার রাজস্ব। অবৈধ বালি উত্তোলন বন্ধ করতে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে একাধিকবার নির্দেশ দেয়া হলেও তা কার্যক্রর হয়নি। এদিকে, বালু উত্তোলনের কারণে তীব্র ভাঙনের মুখে হুমকিতে পড়েছে চরের আশ্রয়ন প্রকল্প, মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ, ইকোনমিক জোন ও প্রস্তাবিত হাইটেক পার্কসহ চরাঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকার বাড়ি-ঘর ও ফসলী জমি।

গেল প্রায় দেড় দশক যাবত একটি সিন্ডিকেট অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সঙ্গে জড়িত। বালি উত্তোলনের প্রতিবাদ করার মতলবে সাবেক জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান আজহার উদ্দিন খুন হয়েছেন। বালু উত্তোলনকারীদের ধরতে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর এক সদস্যকেও প্রাণ দিতে হয়েছে। এছাড়া অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে খুন হয়েছে দু’জন। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধসহ দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানালেন প্রশাসনের এই দুই কর্মকর্তা। মেঘনা নদীর মতলব উত্তর থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ দেখতে চায় এলাকাবাসী ।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন