মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় ক্ষুব্ধ মুক্তিযোদ্ধাসহ ময়মনসিংহ নগরবাসী

0

ময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে বধ্যভূমিতে গড়ে উঠেছে পার্ক। এছাড়া নগরীর পাটগুদাম এলাকার একমাত্র মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধটিও রয়েছে অরক্ষিত অবস্থায়। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় ক্ষুব্ধ মুক্তিযোদ্ধাসহ নগরবাসী।

দূর থেকে বোঝার উপায় নেই যে এটি বধ্যভূমি। ময়মনসিংহ নগরীর ব্রহ্মপুত্র পাড়ে জয়নুল উদ্যানের পাশে বধ্যভূমির ওপর গড়ে উঠেছে পার্ক। এতে নেই কোনও বধ্যভূমির চিহ্ন বা সীমানা প্রাচীর। শুধুমাত্র ইট দিয়ে কোন রকম একটি নামফলক দেয়া আছে। এছাড়া, ১৯৯৯ সালে জেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিত নগরীর পাটগুদাম এলাকায় মুক্তিযুদ্ধের একমাত্র স্মৃতিসৌধটির অবস্থা আরো নাজুক। ১৬ ডিসেম্বর এবং ২৬ মার্চ, এ দুদিন ছাড়া বছরের বাকী সময় স্মৃতিসৌধটি থাকে অযত্ন-অবহেলায়। অনেক দখলদার স্মৃতিসৌধের জমি দখল করে নিচ্ছে।

আলোকসজ্জা না থাকায় স্মৃতিসৌধের ভেতরে সন্ধ্যা হলেই চলে মাদকসেবীদের আড্ডা। একারণে বন্ধ রয়েছে প্রধান ফটকটি। স্মৃতিসৌধ যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ না করায় ক্ষুব্ধ নগরবাসী।

নগরীর বধ্যভূমি এবং একমাত্র স্মৃতিসৌধটি অরক্ষিত থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের কমান্ডার। এদিকে, অচিরেই স্মৃতিসৌধটিকে আধুনিক দৃষ্টিনন্দন করে গড়ে তোলার আশ্বাস দিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান। মহান মুক্তিযুদ্ধ ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি রক্ষায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ শিগগিরই যথাযথ পদক্ষেপ নেবে, এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন