মাত্র কয়েক বছরেই ব্যান্ডউইথের চাহিদা বাড়বে কয়েকগুণ

0

দেশে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথের যে চাহিদা, তাতে মাত্র কয়েক বছরেই এই চাহিদা বাড়বে কয়েকগুণ। বাংলাদেশ যেভাবে তথ্য প্রযুক্তিখাতে এগিয়ে যাচ্ছে, সেই অনুযায়ী ব্যান্ডউইথ না পেলে– অগ্রযাত্রায় হোচট খেতে পারে দেশ। এমনটাই মত প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের। তাই দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলের ব্যান্ডউইথের পুরোটাই বাংলাদেশের জন্য সংরক্ষণের পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

বর্তমানে বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারের পরিমাণ ৪০০ জিবিপিএসের বেশি। এতদিন ২৮০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইডথ ভারত থেকে আমদানি করা হলেও সে প্রয়োজন ফুরিয়ে গেছে। এখন সিমিইউ-৫-এ যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কেনায় আগ্রহ দেখিয়েছে মালয়েশিয়া, ভুটান, মিয়ানমার, শ্রীলংকা, ভারতের সেভেন সিস্টার ও আসাম। তবে ৬১০ কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরী এ সাবমেরিন কেবলের ব্যান্ডউইডথ এখনই বেশি পরিমানে বিক্রি না করার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

সারাদেশের ইন্টারনেট সরবরাহকারীদের সংগঠন আইএসপি অ্যাসোসিয়েশন বলছে দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা নিয়ে ব্যপকভাবে কাজ করার সুযোগ থাকলেও নানা প্রতিবন্ধকতায় তা গতি পাচ্ছেনা।

ব্যান্ডউইথের চাহিদা বাড়ছে স্বীকার করে বিএসসিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দাবি উদ্বৃত্ত ব্যান্ডউইথই রপ্তানি করবে দেশ। তবে চাহিদার পাশাপাশি দক্ষতা না বাড়লে দেশের ব্যান্ডউইথ অব্যাবহৃতই থেকে যাবে।

প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্বের সাথে দ্রুত যোগাযোগে বাংলাদেশ যেন পিছিয়ে না পড়ে, সেটি মাথায় রেখে সরকারি সিদ্ধান্ত নেয়া হলে লাভবান হবে বাংলাদেশ।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন