বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ

0

এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আবু ধাবিতে খেলা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায়। তামিম ইকবাল বিহীন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের চ্যালেঞ্জ থাকবে আফগান লেগ স্পিনারদের মোকাবেলা। আর আফগানরা প্রেরণা পাচ্ছে সাম্প্রতিক রেকর্ড থেকে।

এশিয়া কাপের সুপার ফোর নিশ্চিত হয়েছে বাংলাদেশ-আফগানিস্তানের। দু’দলের ম্যাচটা হতে যাচ্ছে আনুষ্ঠানিকতা রক্ষা। নিয়ম রক্ষার ম্যাচ হলেও প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস পাওয়া যাচ্ছে বাংলা-আফগান লড়াইয়ে।  আফগানদের একসময়ের হোম ভেন্যু আরব আমিরাতে রশিদ-মুজিবরা কতটা ভয়ংকর ভেল্কি দেখাতে পারেন তার তরতাজা উদাহরণ সবশেষ ম্যাচ। শ্রীলঙ্কাকে শুধু তারা হারায়নি টুর্নামেন্ট থেকেই বিদায় করেছে লঙ্কানদের। ভেন্যু এবং কন্ডিশনের সঙ্গে সখ্যতা থাকায় বাংলাদেশের বিপক্ষেও মানসিকভাবে অনেকটা এগিয়ে থাকবে ক্রিকেটের নতুন এই শক্তি। একটা পরিসংখ্যানই বুঝিয়ে দিচ্ছে তাদের এগিয়ে থাকার বিষয়টি। বাংলাদেশ আরব আমিরাতে ম্যাচ খেলেছে ৬টি আর সেখানে আফগানদের অভিজ্ঞতা আছে ৩২ ম্যাচ খেলার।

সাম্প্রতিক মুখোমুখিতে আফগানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের ফলাফল সুখকর নয়। ভারতে অনুষ্ঠিত টি-টুয়েন্টি সিরিজে কিছুদিন আগেই হোয়াইটওয়াশ হতে হয় বাংলাদেশকে। তবে এশিয়া কাপের ফরম্যাট ভিন্ন হওয়ায় নিজেদেরকেই এগিয়ে রাখছে টাইগাররা। প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান বলেই বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আতংকের নাম লেগ স্পিনার রশিদ খান। অবশ্য তাকে মোকাবেলায় আলাদা অনুশীলনটাও করা আছে টাইগার ব্যাটসম্যানদের।

দু’দলের মুখোমুখি পরিসংখ্যানেও খুব বেশি এগিয়ে নেই মাশরাফিরা। ওয়ানডে ফরম্যাটে ৫ বার মুখোমুখিতে ৩টায় জয় দুইটাতে হার বাংলাদেশের। এই প্রথম আরব আমিরাতে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে মাশরাফি-মুশফিকরা। এশিয়া কাপ থেকে তামিমকে ছিটকে যাওয়ায় তার শূণ্যস্থান পুরণে শুনা যাচ্ছে দুটি নাম। মুমিনুল নাকি শান্তু। তবে যেই আসুক এই ম্যাচটা যে হতে যাচ্ছে আফগান স্পিন বনাম বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানদের লড়াই তা বলাই যায়। সেই রোমাঞ্চ দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশের কোটি ক্রিকেট ভক্ত।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন