বিভিন্ন ক্যাসিনোয় অভিযান চালিয়ে ১৮২ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

0

রাজধানীর বিভিন্ন ক্যাসিনোয় অভিযান চালিয়ে একশো ৮২ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়েছে রেব। গ্রেফতার করা হয়েছে বিদেশি নাগরিকসহ ইয়াংম্যান্স ক্লাবের মালিক ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে। তার কাছ থেকে মাদক, অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র পাওয়া গেছে বলেও জানিয়েছে রেব। এছাড়া ৩টি ক্যাসিনো থেকে নগদ ৪০ লাখ টাকা, বিভিন্ন রকমের বিদেশী মদ, সিগারেট, জাল টাকা এবং জুয়া খেলার সরঞ্জামও জব্দ করা হয়েছে। আর এসবের পেছনে যারাই থাকুক না কেনো প্রচলিত আইনে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন রেবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম।

বুধবার বিকেল থেকেই রাজধানীর অবৈধ ক্যাসিনো গুলোতে অভিযানে নামে রেব। ফকিরাপুলের ইয়াংম্যান্স ক্লাব, ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব ও গুলিস্তানের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রের কর্মকান্ডের আড়ালে মাদক ও জুয়ার আসর পরিচালনা করায় সিলগালা করে দেয়া হয়।

মধ্যরাত পর্যন্ত চলা অভিযানে ৩টি ক্যাসিনোর কর্মচারি, মালিক ও বিদেশী নাগরিকদের গ্রেফতার করা হয়। এসময় সেখান থেকে আটকদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয় রেবের ভ্রাম্যমান আদালত। আটককৃতরা দীর্ঘদিন ধরেই এসব ক্লাবে জুয়া খেলতো বলে স্বীকারও করেন।

বিদেশী কায়দায় খোদ রাজধানীতে এমন অবৈধ ক্যাসিনোর পরিচালনা করেন ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। এমন অভিযোগে রাজধানীর গুলশানের ৫৯ নম্বর সড়কের এই বাসায় অভিযান চালায় রেব। এসময় লকার থেকে দুটি অস্ত্র, ছয় রাউন্ড গুলি এবং ৫শ ৮৫ পিস ইয়াবাসহ যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে আটক করা হয়।

ফকিরাপুলের ইয়ংম্যান্স ক্লাবের সভাপতি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। অভিযান চালানো হয় পাশের ওয়ান্ডারার্স ক্লাব ও গুলিস্তানের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রেও। এই তিনটি ক্লাব থেকে পাওয়া যায় নগদ টাকাসহ ক্যাসিনোর বিভিন্ন যন্ত্রপাতি। এসব ক্যাসিনোর মালিক যারাই হোকনা কেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি অভিযান অব্যাহত রাখার কথাও জানান রেবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন