বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে আয়োজন করা হয়েছে ডিজে, ব্যান্ড শো’সহ নানা অনুষ্ঠান

0

ঈদ আয়োজনে সাভার ও ধামরাইয়ের বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের জন্য আয়োজন করা হয়েছে ডিজে, ব্যান্ড শো’সহ নানা অনুষ্ঠান।এদিকে,পর্যটন শহর রাঙামাটির সতেজ প্রকৃতি এখন পর্যটক বরণে পুরোপুরি প্রস্তুত। এছাড়া, কক্সবাজার ও মৌলভীবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউসগুলো সেজেছে ঈদের সাজে। আর, পর্যটকদের নিরাপত্তায় সব ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশ ও লাইফগার্ডসহ আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা।

ঈদের ছুটিতে বিনোদেন কেন্দ্রগুলোতে ছুটে আসে দর্শনার্থীরা। ছোট-বড় সব বয়সীরাই এ আনন্দ-উৎসবে যোগ দিয়ে বাড়তি মাত্রা যোগ করে। সাভার ও ধামরাইয়ে রয়েছে প্রায় ৫০টি বিনোদন কেন্দ্র। এরমধ্যে সাভারের ফ্যান্টাসি কিংডম, নন্দন পার্ক, ধামরাইয়ের আলাদিন এবং নীলা পার্ক অন্যতম।

প্রতিবারের মতো এবারও রয়েছে ডিজে, লাইভ ড্যান্স শো, লেজার লাইট, ডিজে ফেষ্টিভ্যাল, কনসার্ট, রেফেল ড্র এবং রি-ইউনিয়নের আয়োজন।এসব বিনোদন কেন্দ্রগুলোর পক্ষ থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা জানান, কর্মকর্তারা।

রাঙামাটিতে ঈদের ছুটিতে বেড়াতে আসা পর্যটকদের জন্য স্পটগুলোতে নেয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ। বর্ষা মৌসুম হওয়ায় পর্যটকরা ভিন্ন আমেজ পাবেন বলে মনে করছে, স্থানীয়রা।

পর্যটকদের সর্বোচ্চ সেবা দেয়ার কথা জানান, এ কর্মকর্তা।

এদিকে, কক্সবাজারে আগাম বুকিং হয়েছে পাঁচ শতাধিক হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউজের ৮০ শতাংশ রুম।

পর্যটকদের নিরাপদ রাখতে চার স্তরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছে, ট্যুরিস্ট পুলিশ।

ওদিকে, মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, হামহাম প্রাকৃতিক জলপ্রপ্রাত, মাধবপুর লেক দেশি-বিদেশি পর্যটকের পদচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে।

নিরপাত্তা নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত পর্যটন পুলিশের পাশাপাশি অন্যান্য বাহিনী মোতায়েন আছে বলে জানান, পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন