পাহাড় ধসে মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছে হাজারো পরিবার

0

বান্দরবানে পাহাড় ধসে মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছে হাজারো পরিবার। এখনো বিভিন্ন পাহাড়ের পাদদেশে বসবাস করছে কয়েক হাজার মানুষ। থেমে নেই পাহাড় কেটে ঘর নির্মান। চলছে অপরিকল্পিতভাবে বসতি স্থাপনও। প্রশাসনের বিধি নিষেধ থাকলেও, নিজ ভিটে মাটি ছাড়তে নারাজ তারা। তবে, বিশেষজ্ঞদের মতে পাহাড় কাটা বন্ধ না হলে মিলবে না এর সমাধান।

প্রতিবছর বর্ষা আসলে পাহাড় ধসে মারা যায় অনেকে। পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছে অনেক পরিবার। বান্দরবান পৌরসভা, সদর উপজেলা, লামা ও নাইক্ষ্যংছড়িতে প্রবল বর্ষণ ও পাহাড় ধসে ২০১১ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত এক’শ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা না মেনে পাহাড় কেটে ঘর-বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করছে এসব পরিবার। সরকার তাদের জন্য অন্যত্র আবাসনের ব্যবস্থা না করে দেয়ায়, নিজেদের ভিটেমাটি ছেড়ে যেতে চান না তারা।

উপায় না থাকায় মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়েও থাকতে হচ্ছে বলেন জানান, ভুক্তভোগীরা। তবে, পাহাড়ি অঞ্চলে নরম মাটি ধসের কারণ বলে জানান কর্মকর্তা। সাতটি আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ করতে পারলে সাময়িক সমাধান হবে বলে মনে করেন, জেলা প্রশাসক।

পাহাড় কাটা বন্ধ, পরিকল্পিত বসতি স্থাপন এবং পাহাড়ে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করতে পারলে, বর্ষায় পাহাড় ধসে মৃত্যুর ঝুঁকি এড়ানো যাবে বলে মনে করেন, স্থানীয়রা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন