বাগেরহাটে “লক্ষীদিঘা” ধানের বাম্পার ফলন

0

বাগেরহাটে “লক্ষীদিঘা” ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। বিলুপ্ত প্রায় এ ধানটি জেলার কচুয়া উপজেলার দরিচর মালিপটন এলাকায় চাষ করা হয়েছে। গ্রীণ বাগেরহাট অর্গানিক এ্যাগ্রো লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান পরীক্ষামূলকভাবে চাষে একরে ৩৫ মন ফলন পেয়েছে ধানটির।

২০১৪ সালের ২০ জুলাই কৃষিবিদদের এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা “লক্ষীদিঘা” ধান বঙ্গবন্ধু পছন্দ করতেন বলে জানান। তারপর থেকেই মাটি ও ধান গবেষক মুক্তিযোদ্ধা হাশেম জামান “লক্ষীদিঘা” ধানের উপর গবেষণা শুরু করেন। ফরিদপুরের এক প্রত্যন্ত কৃষকের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করে পরীক্ষামূলকভাবে কচুয়ায় উচু জমিতে গ্রীণ বাগেরহাট অর্গানিক এ্যাগ্রো’র মাধ্যমে এ ধানের চাষ শুরু করেন। রোপন থেকে শুরু করে দীর্ঘ ১৩৫ দিনের পরিচর্যায় শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে ধান কাটেন গ্রীণ বাগেরহাট অর্গানিক এ্যাগ্রো লিমিটেডের কৃষকরা।

গবেষক হাশেম জামান জানালেন, বঙ্গবন্ধু এ ধানের চাল পছন্দ করতেন, বলেই এ উপর গবেষনা শুরু তিনি। এবছরের জুন মাসো শেষে “রেইজড বেড ফারো এ্যান্ড টুইন প্লান্টেশন টেকনিকে” উচু জমিতে এ ধানের চাষ শুরু করার কথাও জানান তিনি।

গবেষনায় দেখা গেছে বিলুপ্তপ্রায় এ ধানের চালের ভাত খুবই সুস্বাদু। ফলন কম হওয়ায় বিল অঞ্চলে সামান্য পরিমানে কিছু কৃষক চাষ করছে এ ধান।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন