বর্ণাঢ্য আয়োজনের ঘাটতি ছিলো না বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক উৎসবের উদ্বোধনীতে

0

বৃষ্টির জন্য অনুষ্ঠানস্থল আর শুরুর সময়ে খানিকটা হেরফের হলেও, বর্ণাঢ্য আয়োজনের ঘাটতি ছিলো না বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক উৎসবের উদ্বোধনীতে। দেশের ৬৪টি জেলা এবং জাতীয় পর্যায়ের পাঁচ হাজার শিল্পী ও শতাধিক সংগঠনের অংশগ্রহণে শিল্পকলা একাডেমির নন্দন মঞ্চে ২১ দিনব্যাপী এই শিল্পযজ্ঞ অনুষ্ঠিত হবে। বিকেলে একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তনে উৎসবের উদ্বোধনী আনুষ্ঠিকতায় প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। উৎসব উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

ঢাকের তালে আর তবলার বোলে উন্মাতাল হলো মন। সেই বিবিধ বাদ্যের দ্যোতনায় পৌষের সন্ধ্যা সাজে সুরের অলংকারে। বৃষ্টির কারণে উন্মুক্ত মঞ্চের বদলে মিলনায়তনের ভেতরে উদ্বোধনী আনুষ্ঠানিকতা হলেও তাতে উচ্ছ্বাসের কমতি ছিলো না। ছন্দে-আনন্দে আর নূপুরের নিক্কনে দেশ-মাতৃকার বন্দনা করেন শিল্পীরা। একই মঞ্চে লোকজ গানের সুরে গায়ের বধুর সজল চাহনি ফুটে ওঠে নৃত্যের অনিন্দ্য ভঙিমায়। নজরুলের কবিতার দৃপ্ত উচ্চারণের সাথে সমবেত নৃত্য-পরিবেশনা মুগ্ধ করে দর্শকদের।

আলোচনা পর্বে নিজস্ব সংস্কৃতি চর্চার বিকাশে দেশের প্রতি প্রান্তে এ ধরনের উৎসব আয়োজনে প্রত্যয় জানান আলোচকগণ। আলোচনা পর্ব শেষে অ্যক্রোবেটিক পরিবেশনা উপযাপনের পালায় যোগ করে বাড়তি রঙ। উৎসব মঞ্চে প্রতিদিন জমে উঠবে ৩টি জেলা, ৩টি উপজেলা, জাতীয় পর্যায়ের শিল্পী ও সংগঠনের পরিবেশনায়।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন