পাঁচ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে আবারো উত্তপ্ত চট্টগ্রামের রাজনীতি

0

পাঁচ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে আবারো উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে চট্টগ্রামের রাজনীতি। এদিন পাল্টাপাল্টি সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। তবে এখনো পুলিশি অনুমতি মেলেনি কারোর। কিন্তু অনুমতি হোক আর না হোক যেকোন মুল্যে কর্মসুচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। আর বিশৃঙ্খলা হলে ছাড় দেবে না আওয়ামী লীগ। বিশ্লেষকরা বলছেন, গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে সবাইকে শান্তিপূর্ণ কর্মসুচি পালন করতে হবে। আর আইনশৃঙ্খলার নিশ্চয়তা দিতে হবে পুলিশকেই।

২০১৫ সালের পাঁচ জানুয়ারি নগরীর কাজির দেউরীতে অনুমতি ছাড়া সমাবেশ করায়, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে বিএনপির নেতাকর্মীদের। ঘটনাটি নিয়ে পুলিশ ও বিএনপি নেতারা একে অন্যের ওপর দায় চাপায়। বছর ঘুরে আবারো এসেছে সেই পাঁচ জানুয়ারি। দিনটিকে এবারো গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবে উল্লেখ করে কাজির দেউরিতে সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে দলটি। পুলিশের কাছে আবেদন করলেও অনুমতি মেলেনি এখনো।

পাঁচ জানুয়ারিকে গণতন্ত্র রক্ষা দিবস উল্লেখ করে শহীদ মিনারে উৎসব করবে, আওয়ামী লীগ। রাজপথে বিএনপি-জামাতের অরাজকতা ঠেকাতে প্রয়োজনে পুলিশের সাথে একাট্টা হয়ে মাঠে নামবে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরাও।

তবে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিরপেক্ষ থাকাসহ রাজনৈতিক দলগুলোকেও আরো গণতান্ত্রিক হয়ওয়ার আহবান জানিয়েছে, এই রাজনীতি বিশ্লেষক।

বছর শেষেই নির্বাচন। তাই শুরুতেই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পাল্টাপাল্টি কর্মসুচিতে উত্তপ্ত এখন বন্দরনগরী। তবে আলোচিত পাঁচ জানুয়ারিতে কাউকে রাজপথে দাঁড়ানোর অনুমতি দেয়া হবে কিনা সে সিদ্ধান্ত এখনো জানায়নি, সিএমপি।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন