পণ্য পরিবহনে বাধা সৃষ্টিতে চালের দাম অন্তত ২ টাকা করে বেড়েছে

0

মহাসড়কে স্কেল বসিয়ে ওজন পরিমাপের নামে পণ্য পরিবহনে বাধা সৃষ্টিতে প্রতিকেজি চালের দাম অন্তত ২ টাকা করে বেড়ে গেছে চট্টগ্রামে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ড ও দাউদকান্দিতে স্কেলের নামে চাঁদাবাজী ও পণ্য ছিনতাইয়ের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে চালের দাম বাড়াতে বাধ্য হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এজন্য মহাসড়ক থেকে স্কেল তুলে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন হয়রানীর শিকার পরিবহন চালকরা।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ড ও কুমিল্লার দাউদকান্দিতে কথিত ওজন মাপার জন্য বসানো এই স্কেলে পণ্য পরিবহনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের হয়রানীর অভিযোগ দীর্ঘদিনের। চলতি মাসের শুরু থেকে এই হয়রানী যেন আরো সীমা ছাড়িয়েছে। কারণ খাদ্যপণ্যের ক্ষেত্রে বড় কাভার্ডভ্যানের ক্ষমতা ২০ টনের পরিবর্তে হঠাৎ করে ১২ টনে সীমাবদ্ধ করেছে কর্তৃপক্ষ। ফলে পরিবহন খরচ বেড়ে গেছে প্রায় দ্বিগুণ। যার প্রভাব পড়ছে বাজারে। গেল এক সপ্তাহের ব্যবধানে চট্টগ্রামে সব ধরণের চালের দাম প্রতি কেজিতে বেড়েছে ২ থেকে ৩ টাকা করে।

মহাসড়ক থেকে হয়রানির স্কেল বন্ধ করে দেয়ার দাবি জানিয়ে, এভাবেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রতিদিন চাঁদাবাজি আর হয়রানির শিকার হওয়া পরিবহন শ্রমিকরা।

ওদিকে সরকার এবার ৩৯ টাকা দরে আমন সংগ্রহ শুরু করেছে। এতে চালের দাম সারাদেশেই উর্ধমুখী। কিন্তু স্কেলের নামে চাঁদাবাজির কারণে চট্টগ্রামে চালের দাম বাড়ছে আরো। স্কেল বন্ধ না করলে এই দাম কমার কোন সম্ভাবনা দেখছেন না ব্যবসায়ী নেতারা।

চাল আমদানীতে ২৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহারসহ সরকারিভাবে চাল-গম আমদানীর মাধ্যমে খাদ্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে বেশকিছু ইতিবাচক পদক্ষেপ রয়েছে সরকারের। কিন্তু ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের এই দুটি স্কেলের জন্য এসব পদক্ষেপের সুফল পাচ্ছে না সাধারণ মানুষ।

শেয়ার করুন।