নেপালে ইউএস বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়ে নিহত অর্ধশতাধিক

0

নেপালের কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার একটি বিমান বিধস্ত হয়েছে। ৭৮ আসনের বিমানটিতে আরোহী ছিলেন ৭১ জন। বিমানবন্দরের নিরাপত্তাকর্মী ও নেপাল সেনাবাহিনী ঘটনাস্থলে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। এখন পর্যন্ত অর্ধ শতাধিক নিহতের খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। দুর্ঘটনার পর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে বিমান ওঠা-নামা বন্ধ করে রেখেছে নেপাল সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ। এদিকে, বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বিএস টু ওয়ান ওয়ান ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে রওনা হয় বাংলাদেশ সময় সোমবার দুপুর ১২টা ৫২ মিনিটে। ধারণা করা হচ্ছে, নেপাল সময় বেলা ২টা ২০ মিনিটে কাঠমান্ডুতে নামার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে পাইলট। এসময় বিমানটি রানওয়ে থেকে ছিটকে, আগুন ধরে যায়।

নেপাল বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক সঞ্জিব গওতমের উদৃতি দিয়ে কাঠমান্ডু পোস্ট বলছে, ড্যাশ-এইট কিউ ফোর হান্ড্রেড মডেলের ওই উড়োজাহাজটি ত্রিভূবন বিমান বন্দরে নামার কথা ছিল রানওয়ের দক্ষিণ প্রান্ত থেকে। ধারণা করা হচ্ছে, বিমানে কোনো কারিগরি ত্রুটির কারণে পাইলট উত্তর প্রান্ত দিয়ে রানওয়েতে নামার চেষ্টা করেন।

ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের মুখপাত্র প্রেম নাথ ঠাকুর গণমাধ্যমকে জানান, অবতরণের সময় বিমানটি তীব্র ঝাঁকুনি দিয়ে, দিক পাল্টে পূর্ব পাশের একটি ফুটবল মাঠে আছড়ে পড়ে। আর মুহুর্তে মধ্যে ধরে যায় আগুন।

ঘটনার পরপরই বিমান বন্দরের উদ্ধারকর্মী, নেপাল সেনাবাহিনী সদস্যরা উদ্ধার কাজ শুরু করে।

বিমানটিতে ৬৭ জন যাত্রী ও ৪ জন ক্রু ছিলেন। এরমধ্যে ২৭ জন নারী, দুই শিশু ও ৩৮ জন পুরুষ। যাত্রীদের টিকিটের তথ্য বিশ্লেষণে জানা গেছে, এরমধ্যে ৪০ বাংলাদেশী, ৩০ নেপালী এবং একজন চীনা যাত্রী রয়েছেন।

ইউএস-বাংলার প্লেন বিধ্বস্ত হওয়ার খবর পেয়েই দুর্ঘটনাস্থলে ছুটে যান নেপালের প্রধানমন্ত্রী খাড়গা প্রসাদ শর্মা অলি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাম বাহাদুর থাপা।

নেপাল পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব সুরেশ আচার্য্য জানান, দুর্ঘটনাস্থল থেকে বেশ কয়েকজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন কয়েকজন।

এর আগে বাংলাদেশের কোনো উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে হতাহতের সবচে’ বড় ঘটনাটি ঘটে ১৯৮৪ সালে। সেবছর ৫ আগস্ট বাংলাদেশ বিমানের ফকার এফ-২৭ বিরূপ আবহাওয়ায় ঢাকা বিমানবন্দরের কাছে বিধ্বস্ত হলে নিহত হয় ৪৯ জন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন