নির্বাচনকে ঘিরে নওগাঁ ২ আসনে পুরোদমে বইছে নির্বাচনী হাওয়া

0

সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে নওগাঁর সীমান্তবর্তী পত্নীতলা-ধামইরহাট উপজেলা নিয়ে গঠিত নওগাঁ দুই আসনে পুরোদমে বইছে নির্বাচনী হাওয়া। ১৯৯৪ ও ২০০১ সালে আসনটি বিএনপির দখলে থাকলেও ২০০৮ ও ২০১৪ সালের নির্বাচনে আসনটি চলে যায় আওয়ামী লীগের কাছে। এবার এ আসনে হবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দুই শক্তিশালী প্রার্থীর লড়াই।

ভারত সীমান্তঘেষা দুটি পৌরসভা ও ১৯টি ইউনিয়ন নিয়ে নওগাঁ দুই আসন। দীর্ঘ দিন ধরে পত্মিতলা, ধামইরহাট, সাপাহার ও পোরশা উপজেলাকে নিয়ে চলছে নজিপুর জেলা করার প্রক্রিয়া। এই উপজেলা গুলোকে নিয়ে আলাদা জেলার দাবীও দীর্ঘদিনের। ১৯৯১ সালেএ আসনে জয়ী হন আওয়ামী লীগের শহীদুজ্জামান সরকার। আর ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে নির্বাচিত হন বিএনপির সামসুজ্জোহা খান। ২০০৮ সালে আসনটি আবারো চলে যায় শহীদুজ্জামান সরকারের দখলে। বর্তমান সরকারের ১০ বছরের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে আবারো আওয়ামী লীগ চায় আসনে টিকে থাকতে।

এ আসনে মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। তার দাবি, সাধারণ মানুষের চাপেই তিনি প্রার্থী হয়েছেন।
এদিকে, বিএনপি তাদের হারানো আসন পুনরুদ্ধার করতে মরিয়া। বিএনপি প্রার্থীরা বলছেন, এবারের নির্বাচন হচ্ছে বিএনপির চেয়ারপার্সনের মুক্তির আন্দোলন। এদিকে সাধারন ভোটাররা চান; অবাধ, সুষ্ঠু ও সব দলের অংশগ্রহনের মধ্য দিয়ে নিরপেক্ষ নির্বাচন। এবারের নির্বাচনে নওগাঁ দুই আসনের মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ২২ হাজার ৯১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৬১ হাজার ১২৪ জন এবং নারী ভোটারা ১ লাখ ৬০ হাজার ৯৬৭ জন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন