Site icon SATV

ধনু নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ে সর্বশান্ত হয়েছেন হতদরিদ্র শতাধিক পরিবার

নেত্রকোণার খালিয়াজুরীতে ধনু নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ে সর্বশান্ত হয়েছেন হতদরিদ্র শতাধিক পরিবার। সবকিছু হারিয়ে অনেকেই আশ্রয় নিয়েছেন বিদ্যালয় ভবনে। টিউবওয়েল ও স্যানিটারি ল্যাট্রিন না থাকায় বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে গ্রামের অনেকেই। জরুরী ভিত্তিতে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করে সমস্যা সমাধানের দাবী গ্রামবাসীর। তবে বালু ভর্তি বস্তা দিয়ে ভাঙ্গন রোধে কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

নেত্রকোণার হাওরাঞ্চল খালিয়াজুরীর সবচেয়ে বড় ও খরস্রোতা নদী ‘ধনু’। তীব্র ঢেউ ও স্রোতের কবলে ব্যাপক ভাঙ্গনের শিকার হচ্ছে নদী তীরবর্তী গ্রাম। এর মধ্যে খালিয়াজুরীর চাকুয়া ইউনিয়নের পাথরা গ্রামেই সবচেয়ে বেশী ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। চলতি বছর ভাঙ্গনের মাত্রা বেড়েছে কয়েকগুণ।

সহায় সম্বল হারিয়ে স্থানীয় বিদ্যালয়েই আশ্রয় নিয়েছে বেশ কয়েকটি পরিবার। এছাড়া নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে গ্রামের সব টিউবওয়েল ফলে দেখা দিয়েছে পানির তীব্র সংকট। বাদ পড়েনি স্যানিটারি ল্যাট্রিন। বাড়ছে রোগ। দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার দাবী ভুক্তভোগীদের।

গ্রাম রক্ষায় ইতোমধ্যে নদীতে ফেলা হচ্ছে বালুর বস্তা। প্রকল্পের মাধ্যমে স্থায়ী বাঁধ নির্মাণের আশ্বাস পানি উন্নয়ন বোর্ডের এই কর্মকর্তার।

এদিকে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে খাদ্য ও আর্থিক সহায়তার পাশাপাশি গৃহহীনদের আশ্রয়ন প্রকল্পে পুনর্বাসনের কথা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক। ভাঙ্গনরোধে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

Exit mobile version