দুর্ঘটনায় দু’শতাধিক রোহিঙ্গার মরদেহ ভেসে উঠেছে সমুদ্রে

0

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অসহনীয় নির্যাতন সইতে না পেরে– বাংলাদেশে পাড়ি দেয়ার সময় নৌকা-ডুবি ও ট্রলার দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত দু’শতাধিক রোহিঙ্গার মরদেহ ভেসে উঠেছে সমুদ্রে। বেওয়ারিশ এসব মরদেহ শুধুমাত্র ধর্মীয় রীতিতে দাফন করেছে বাংলাদেশের মানুষ। প্রতিনিয়ত সমুদ্রের পানিতে মরদেহ ভেসে ওঠার এসব দৃশ্য দেখে বিবেকবর্জিত মিয়ানমারের প্রতি কেবল ধিক্কার জানাচ্ছে বিশ্ব মানবতা।

না, নেই। রোহিঙ্গাদের এসব বেওয়ারিশ লাশে’র পাশে আকাশ বিদীর্ন হওয়ার মত স্বজনদের আহাজারি নেই। হারানোর বেদনায় স্তব্ধ হয়ে পড়া বৃদ্ধা মায়ের নিদারুণ কষ্টময় আকুতি নেই। ভাই-কিংবা বোনের হৃদয়ভাঙ্গা হাহাকারও নেই। নেই প্রিয়তমা স্ত্রী-সন্থানের সব হারানোর বিয়োগ ব্যথা সইতে না পারার বুকফাঁটা কান্নায় ভারি হয়ে ওঠার মত পরিবেশ।

এতসব নেই এর মাঝেও বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ভরা দরদ আর পাশে দাঁড়ানোর অসীম সাহসিকতা আছে। নিগৃহীত জনগোষ্ঠীর নিষ্পেষিত মানবতার পাশে হাত বাড়িয়ে দেয়া বাংলাদেশের প্রতিনধিত্ব করছে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ সীমান্তের মানুষ। বেওয়ারিশ লাশগুলোকে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে সমাহিত করার চেষ্টা করছেন তারা।

সাগরের উত্তাল ঢেউয়ের সাথে প্রতিদিনই সমুদ্র সৈকতে আছড়ে পড়ছে নারী শিশুসহ হতভাগ্য রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিথর দেহ। নাফ নদীতে পানার মত ভেসে উঠছে পঁচা-গলা অজ্ঞাত লাশ। জীবন নিয়ে পালিয়ে আসা অনেক শরনার্থী সীমান্তের ওপারে ফেলে আসা স্বজনদের খুঁজে ফিরছেন নদী-ও সমুদ্র তীরে।

শেয়ার করুন।