দুর্গতদের নানা সংকটের মাঝে আতংকিত করে তুলেছে সংঘবদ্ধ ডাকাত চক্র

0

দুর্গতদের নানা সংকটের মাঝে আতংকিত করে তুলেছে সংঘবদ্ধ ডাকাত চক্র। দিশেহারা হয়ে গাইবান্ধা সদরের কাপাশিয়া ইউনিয়নের বানভাসীরা কম দামে পশু বিক্রি করে দিচ্ছেন। রাত জেগে বাড়ি পাহারা দিয়েও রক্ষা করতে না পেরে অর্ধেক দামে গবাদি পশু বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। ডাকাতদলের অস্ত্রের মুখে অনেকটাই অসহায় দুর্গতরা। অথচ কোরবানি ঈদকে ঘিরে পালন করা হয়েছে গবাদি পশুগুলো। গাইবান্ধা প্রতিনিধি কায়ছার প্লাবনের প্রতিবেদন।

বন্যার পানি কমতে শুরু করলেও— এবার ডাকাত আতঙ্কে দিন পার করছে গাইবান্ধার দক্ষিণ-পূর্ব দিকের দুর্গম চরাঞ্চল কাপাশিয়া ইউনিয়নের কয়েক হাজার বানভাসী মানুষ। দিন-দুপুরে অথবা রাতের অন্ধকারে অস্ত্রের মুখে জিম্মি কোরে ডাকাত দল নিয়ে যাচ্ছে জীবিকা নির্বাহের একমাত্র সম্বল ‘গরু’। এতে চরম দুশ্চিন্তায় পড়েছে এলাকাবাসী। এই সুযোগ নিয়ে অসহায় আতংকিত মানুষগুলোর গরু— স্থানীয় কয়েকজন পাইকার— প্রায় অর্ধেত দামে কিনে নিচ্ছে। আর ডাকাত আতঙ্কে অনেকে বাধ্য হয়ে কম দামে বিক্রিও করছে।

এদিকে, ডাকাতদের তৎপরতা বন্ধ করতে— পুলিশ সংঘবদ্ধ হয়ে কাজ করছে বোলে জানালেন পুলিশ সুপার। গত রোববার মধ্যরাতে, দু’টি নৌকায় করে প্রায় ৩৫ জনের একদল ডাকাত— অস্ত্রের মুখে কাজিয়ারচর গ্রামের ২৫টি গরু নিয়ে যায়। এ সময় বাধা দিতে গিয়ে ডাকাতের গুলিতে গুরুতর আহত হন তিনজন।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন