দুদকের তদন্ত বন্ধে সুপ্রিমকোর্টকে দেয়া চিঠির বৈধতার প্রশ্নে রুল শুনানি

0

আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি জয়নুল আবেদীনের বিরুদ্ধে, দুদকের তদন্ত বন্ধে সুপ্রিমকোর্টকে দেয়া চিঠির বৈধতার প্রশ্নে রুল শুনানি, ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত মুলতবি করেছে হাইকোর্ট। শুনানি শেষে এক প্রতিক্রিয়ায় অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, কেউ আইনের উর্ধ্বে নয়। শুধু আপিল বিভাগের বিচারপতি নন, প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধেও অভিযোগ তদন্তের স্বাধীনতা দুদকের রয়েছে। কিন্তু ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের মতে, বিচার বিভাগের অভিভাবক হিসেবে সর্বোচ্চ আদালতের ভাবমূর্তি রক্ষায় যে কোন করণীয় পদক্ষেপ নেয়ার এখতিয়ার প্রধান বিচারপতি আছে।

চলতি বছর ২৮ মার্চ দুর্নীতি দমন কমিশন দুদককে এই চিঠি দেয় সুপ্রিমকোর্ট। এতে উল্লেখ করা হয়, অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি জয়নুল আবেদীন হাইকোর্ট এবং আপিল বিভাগের বিচারপতি থাকা অবস্থায় ফাঁসিসহ বিভিন্ন মেয়াদের সাজা দিয়ে অনেক মামলার রায় দিয়েছেন। তাই তার বিরুদ্ধে দুদকের কোনো ব্যবস্থা ওই মামলাগুলোকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে। একই সঙ্গে প্রধান বিচারপতি কর্তৃক আদিষ্ট হয়ে লেখা এই চিঠিতে বলা হয়, সাবেক বিচারপতির বিরুদ্ধে কোন আইনি ব্যবস্থা সমীচিন নয় বলে মনে করে সুপ্রিমকোর্ট।

ছয় মাস পর ওই চিঠির বৈধতা ও এখতিয়ার নিয়ে স্বপ্রনোদিত রুল জারি করে হাইকোর্ট। এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেলের পর্যবেক্ষণ, দুদক চাইলে প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধেও তদন্ত করতে পারবে।

এদিকে দুদকের আইনজীবীর দাবি, সুপ্রিমকোর্টে ওই চিঠি এখতিয়ার বহিভূর্ত। তবে বিচার বিভাগের ভাবমূর্তির স্বার্থে এমন চিঠি দেয়ার এখতিয়ার প্রধান বিচারপতির রয়েছে বলে জানান বিচারপতি জয়নুল আবেদীনের আইনজীবী। অতিরিক্ত রেজিষ্ট্রার প্রধান বিচারপতির আদেশে চিঠি লেখেন, সে বিবেচনায় প্রধান বিচারপতিকে বাদ দিয়ে কেন তাকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে, এমন প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান দুদকের আইনজীবী।

শেয়ার করুন।