দলের চেয়ারপার্সনকে স্বাগত জানাতে এসে রাস্তায় দাঁড়াতে না দেয়ার অভিযোগ

0

দলের চেয়ারপার্সনকে স্বাগত জানাতে এসে রাস্তায় দাঁড়াতে না দেয়ার অভিযোগ তুলেছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে মঞ্চ, মাইক ও ব্যানার-ফেস্টুন কেড়ে নেয়ার ঘটনাও ঘটেছে। এদিকে, নরসিংদী থেকে আটক করা হয়েছে বিএনপি’র আইন বিষয়ক সম্পাদক ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়াসহ প্রায় একশো নেতাকর্মীকে। এছাড়া, ভৈরব ও নারায়ণগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলা থেকে শতাধিক নেতাকর্মীকে আটক করা হয়।

খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে আসা নরসিংদীর বিএনপি নেতাকর্মীদের ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে দাঁড়াতে দেয়নি পুলিশ। এছাড়া খালেদা জিয়ার গাড়ি বহরে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়। পাশাপাশি শিবপুরের কারার চর ও ভেলানগর থেকে আটক করা হয় বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়াসহ ১২ জন নেতাকর্মীকে। এসময় বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

ভৈরবে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, লাঠিচার্জ ও ফাঁকা গুলির ঘটনা ঘটেছে। এসময় কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্মসাধারণ স্মপাদক, ভৈরব উপজেলা বিএনপির সভাপতি, জেলা ছাত্র দলের আহ্বায়ক’কে আটক করা হয়েছে।

এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আগমনকে ঘিরে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে বিএনপির মঞ্চ ও মাইক খুলে নিয়েছে পুলিশ। এ সময় নেতাকর্মীদের রাস্তার পাশ থেকে ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দেয় পুলিশ। এছাড়া মাধবপুর, মিরপুর ও আউশকান্দিতে সমবেত নেতাকর্মীদেরও রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়া হয়।

নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থান থেকে বিএনপি’র আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ ও মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানসহ ৬ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে দলের নেতাকর্মীরা জড়ো হলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়। এসময় ১৩ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে, নাশকতা পরিকল্পনার অভিযোগে নড়াইলের কালিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি সরদার আনোয়ার হোসেনসহ জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপিসহ অঙ্গ সংগঠনের ৫ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। আটকৃতদের বিরুদ্ধে নাশকতা প্রস্তুতি ও বিস্ফোরক আইনে মামলা হয়েছে।

ঝিনাইদহে নাশকতা পরিকল্পনার অভিযোগে বিএনপি ও জামায়াতের ২২ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ সময় উদ্ধার করা হয়েছে ৭টি ককটেল।

চুয়াডাঙ্গায় বিএনপি ও জামায়াতের ১৫ জন নেতা-কর্মীসহ ৪৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গাইবান্ধায় সাদুল্লাপুর উপজেলা জামায়তের সেক্রেটারি ও ১৪ বিএনপি নেতাকর্মীসহ ৫৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন