ডিম সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে থাকা ভুল ধারণাগুলো দূর করার তাগিদ

0

দেশে পুষ্টির অন্যতম যোগানদাতা ডিম সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে থাকা ভুল ধারণাগুলো দূর করার তাগিদ দিয়েছেন পুষ্টিবিদরা। তাদের মতে, শরীরে পুষ্টির যোগান দিতে ছোট-বড় সব বয়সের মানুষকে প্রতিদিন কমপক্ষে একটি করে ডিম খাওয়ার প্রয়োজন। একইসঙ্গে চক্ষু রোগ, হার্ট অ্যাটাক, মহিলাদের ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধের ডিমের গুরুত্ব রয়েছে। এমনকি ডায়বেটিক রোগীরাও নিয়মিত ডিম খেতে পারবেন। সকালে রাজধানীতে বিশ্ব ডিম দিবস উপলক্ষ্যে রেলির পরবর্তী আলোচনা সভায় এসব তথ্য জানান, পুষ্টি বিশেষজ্ঞরা।

ডিম খাওয়া নিয়ে রয়েছে নানা জনের নানা মত। কারো ধারণা, ডিম খেলে শরীরে চর্বি বাড়ে। কেউবা ডিমের কুসুম বা হলদে অংশ বাদ দিয়ে, শুধু সাদা অংশটুকু খান। এমনকি অনেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরাও রোগীদের ডিম খাওয়ার ব্যাপারে বিধি-নিষেধ আরোপ করেন। কিন্তু সুস্থ মানুষতো বটেই, ডায়বেটিক রোগীরাও নিয়মিত ডিম খেতে পারেন নির্দ্বিধায়। ডিমের নানা গুণাগুন বিচার করে ঢাকা বারডেম জেনারেল হাসপাতালের এই প্রধান পুষ্টিবিদ জানালেন, একজন স্বাভাবিক মানুষ প্রতিদিন দু’ থেকে তিনটি পর্যন্ত ডিম খেতে পারেন।

বিশ্ব ডিম দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এই আলোচনায় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জানালেন, বাজারে নকল ডিমের কোনো অস্তিত্ব নেই। তাই এনিয়ে অপপ্রচার চালালে– আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দেন তিনি। অনুষ্ঠানের পোল্ট্রি মালিকরা জানান, মধ্যসত্বভোগীদের দৌরাত্ম বন্ধ করা গেলে– ডিমের দাম কমে আসবে। নিরাপদ ডিম উৎপাদন নিশ্চিত করা, স্বল্প সুদে পোল্ট্রি খামারীদের ঋণ দেয়াসহ এই শিল্পের উন্নয়নে সরকার নানা পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন