জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রায় শতকোটি টাকার প্রকল্প কোন কাজে আসছে না

0

জলাবদ্ধতা নিরসনে খুলনা সিটি করপোরেশনের প্রায় শতকোটি টাকার প্রকল্প কোন কাজে আসছে না। সামান্য বৃষ্টিতেই হাটু থেকে কোমর পানিতে ডুবছে মহানগরী। এতে উল্টো বাড়ছে মানুষের ভোগান্তি ও দুর্ভোগ। জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রকল্প বাস্তবায়নে সিটি করপোরেশনের অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা ও অক্ষমতাকে দায়ী করছেন নাগরিক নেতারা ও সাবেক মেয়র।

গত কয়েক বছর ধরে জলাবদ্ধতায় নাকাল হচ্ছে খুলনা মহানগরীর ১৫ লাখেরও বেশি মানুষ । এ জলাবদ্ধতা নিরসনে ২০১৩ সালে ৩৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘নগর অঞ্চল উন্নয়ন’ নামে একটি প্রকল্প নেয় সিটি করপোরেশন। প্রকল্পের আওতায় গত চার বছরে প্রায় একশো কোটি টাকা ব্যয়ে ময়ূর ও হাতিয়া নদী খনন, ১৩টি ড্রেনের ৬ দশমিক ৭০ কিলোমিটার অংশ নির্মাণ এবং মতিয়াখালী খাল, ক্ষেত্রখালী খালসহ ১২টি খাল সংস্কার করে ড্রেন নির্মাণ করা হয়েছে। ২২ ফুট চওড়া খালের জায়গায় অপরিকল্পিতভাবে নির্মাণ হয়েছে ৮ থেকে ১০ ফুটের কংক্রিটের ড্রেন। এতে পানি নিষ্কাশন প্রবাহে বাধা সৃষ্টি হওয়ায় জলাবদ্ধতা ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে।

সামান্য বৃষ্টিতে নগরীর কেডিএ এভিনিউ, খানজাহান আলী রোড, শামসুর রহমান সড়ক, স্যার ইকবাল রোড, বয়রা, মুজগুন্নীসহ অধিকাংশ এলাকার প্রধান সড়ক প্লাবিত হয়ে বাড়িঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও জলাবদ্ধতা হচ্ছে। এতে বাড়ছে মানুষের ভোগান্তি ও জনদুর্ভোগ। প্রকল্প বাস্তবায়নে সিটি করপোরেশনের ব্যাপক অনিয়ম এবং অব্যবস্থাপনা দায়ী করছেন নাগরিক নেতারা । তবে নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে পযার্য়ক্রমে ব্যবস্থা গ্রহনের কথা জানিয়েছেন কেসিসি মেয়র ।

সিটি করপোরেশনের হিসেবে নগরীর জলাবদ্ধতা ও পানি নিষ্কাশন প্রকল্পের কাজ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে। সরকারী বরাদ্দ পাওয়া গেলে আগামী দুই বছরের মধ্যে জলাবদ্ধতা নিরসনের প্রত্যাশা তাদের।

শেয়ার করুন।
Test