চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে ট্যাক্সের নামে চলছে বেপরোয়া চাঁদাবাজি

0

বেশ কয়েকটি আঞ্চলিক উগ্র সংগঠন ছাড়াও চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে ট্যাক্সের নামে চলছে বেপরোয়া চাঁদাবাজি। এতে ভেস্তে যেতে বসেছে সরকারের নানা উদ্যোগ। এছাড়া চাঁদাবাজির কারণে শিল্পায়নও বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। আর নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, এখনই উদ্যোগ না নিলে পিছিয়ে পড়বে দেশ। তবে পার্বত্য জেলা পরিষদের দাবি, নিয়মানুযায়ী টেন্ডারের মাধ্যমে ট্যাক্স আদায় করা হচ্ছে।

খাগড়াছড়ি শহর থেকে চট্টগ্রামের দিকে যেতেই চোখে পড়ে টিনের ছোট্ট ঘরটি। যেখানে পৌর করের নামে গাড়ি থেকে তোলা হচ্ছে মোটা অংকের চাঁদা। নামকাওয়াস্তে একটি তালিকা টানিয়ে রাখা হলেও চাঁদা তোলা হচ্ছে ইচ্ছে মতো। এছাড়া জিরো পয়েন্ট, টার্মিনাল, মাটিরাঙ্গা ও মানিকছড়িসহ অন্তত ৫টি পয়েন্টে সড়কের ওপর বাঁশ বেধে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি চলছে। অবশ্য কথিত এই ট্যাক্স আদায়কারীদের দাবি, নিয়ম মেনেই চলছেন তারা।

১১০ কিলোমিটারের এই মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্ট চাঁদা আদায় করছে বিভিন্ন সন্ত্রাসী সংগঠন। এতে পার্বত্য অঞ্চলগুলো পিছিয়ে পড়ছে বলে মনে করেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও ব্যবসায়ী নেতারা। তবে, পার্বত্য অঞ্চলের নিয়মানুয়ায়ী টেন্ডারের মাধ্যমে টোল আদায় করা হচ্ছে বলে দাবি পার্বত্য জেলা পরিষদের এই সদস্যের।

জেলা পরিষদ, পৌরসভা এবং বাস টামির্নাল ছাড়াও জেএসএস, জেএসএস সংস্কার, ইউপিডিএফ ও গণতান্ত্রিক ইউপিডিএফ নামের অন্তত ৪টি উগ্র পাহাড়ী সংগঠনও সমানতালে পাহাড়ী এলাকায় চাঁদাবাজি করে চলেছে। পার্বত্য অঞ্চলকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ করতে এসব চাঁদাবাজি বন্ধে প্রশাসনিক তৎপরতা বাড়ানোর দাবি সংশ্লিষ্টদের।
পিটিসি…

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন