খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই বিচারকাজ চালানোর আদেশ

0

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই বিচারকাজ চালানোর আদেশ দিয়েছে আদালত। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫-এর বিচারক আখতারুজ্জামান এই আদেশ দেন। এ মামলার বিচার প্রক্রিয়া বিলম্বিত করতে ইচ্ছাকৃতভাবেই খালেদা জিয়া আদালতে আসছেন না বলেও আদেশে উল্লেখ করেন বিচারক। গুরুতর অসুস্থতার কারণেই আদালতে আসতে পারছেন না বলে দাবি খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের। তাই তার অনুপস্থিতিতে বিচারের আদেশ বেআইনি উল্লেখ করে উচ্চ আদালতে যাওয়ার কথা জানান তারা।

গেল ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয় ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫। সেদিনই নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।

এরপর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বেশ ক’বার তারিখ ঠিক করা হলেও আদালতে হাজির হননি খালেদা জিয়া। পরে অসুস্থতা ও নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বকশি বাজার থেকে পুরোনো কারাগারে আদালত স্থানান্তর করা হলে গত ৫ সেপ্টেম্বর আদালতে আসেন খালেদা জিয়া। তবে এ আদালতে ন্যায় বিচার হবে না দাবি করে অসুস্থ্যতার জন্য আর আদালতে হাজির হতে পারবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন তিনি।

এরপর ১২ ও ১৩ সেপ্টেম্বর এ মামলার শুনানিতে হাজির হননি খালেদা জিয়া। সবশেষ বৃহস্পতিবারও তিনি হাজির না হলে, দু’পক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শেষে তার অনুপস্থিতিতেই বিচার চালানোর আদেশ দেয় আদালত।

শুনানিতে খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ও মাসুদ আহমেদ তালুকদার দাবি করেন, অসুস্থতার কারণেই আদালতে আসতে পারছেন না খালেদা জিয়া। এরপরও এমন আদেশ দেয়ায় উচ্চ আদালতে যাওয়ার কথা জানান আসামীপক্ষের আইনজীবী।

পরে এ মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মুলতবি করা হয়। পাশাপাশি খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই সেদিন থেকে পরপর তিন দিন শুনানির জন্য দিন ধার্য করে আদালত।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন