খালেদার মুক্তি, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন এবং ইসি পুনর্গঠন ছাড়া দেশে নির্বাচন হবে না

0

খালেদা জিয়ার মুক্তি, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন, সেনা মোতায়েন ও নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন ছাড়া দেশে কোনো নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। এমন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপি নেতারা। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিকেলে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে এই হুঁশিয়ারি দেন তারা। নেতারা বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টের সোনা আত্মসাত ও কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের দমনের নামে সরকার দেশে অরাজক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। এ থেকে মুক্তির জন্য খালেদা জিয়ার মুক্তির বিকল্প নেই বলেও তাদের দাবি। এজন্য জাতীয় ঐক্যের দাবি তোলেন তারা।

দীর্ঘদিন পর রাজধানীতে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে শর্ত সাপেক্ষে সমাবেশ করছে বিএনপি। তাই দুপুর থেকেই রাজধানীর বিভিন্নস্থান থেকে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা এসে জড়ো হন, নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে। বিকেল তিনটা বাজার আগেই কানায়-কানায় ভরে যায়, গোটা সড়ক ও আশপাশের এলাকা। সবার একটাই দাবি, খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তি। তার মুক্তি ছাড়া দেশে কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দেন বিএনপি নেতারা। বাংলাদেশের রাজনীতিতে হস্তক্ষেপের জন্য প্রতিবেশি রাষ্ট্রের সমালোচনা করেন তারা।

রাজপথে আন্দোলন ছাড়া বিএনপি নেত্রীর মুক্তি মিলবে না উল্লেখ করে সবাইকে কঠোর আন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানান, কেউ কেউ। খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে আটক রাখা হয়েছে মন্তব্য করে ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, নির্বাচনে ভয় পায় বলেই দলের চেয়ারপার্সনকে কারাগারে আটকে রেখেছে সরকার।

সমাবেশে সবশেষ বক্তব্য রাখেন বিএনপি মহাসচিব। শুরুতেই কথা বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টের স্বর্ণ আত্মসাত ও কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে। দেশের কোন মানুষই নিরাপদ নয় উল্লেখ করে হত্যা-গুম বন্ধের আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল। বিএনপি নেতাকর্মীদের হয়রানি ও মামলা প্রত্যাহার করে– খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দাবি করেন তিনি। আওয়ামী লীগের অপশাসন বন্ধ করতে, জাতীয় ঐক্য তৈরি করে– সবাইকে রাজপথে নামার প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বানও জানান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন