ঐতিহ্য ও সৌন্দর্য হারাচ্ছে কুমিল্লা নগরীর প্রাচীন দিঘি ধর্মসাগর

0

অবৈধ দোকানপাট গড়ে উঠায় ঐতিহ্য ও সৌন্দর্য হারাচ্ছে কুমিল্লা নগরীর প্রাচীন দিঘি ধর্মসাগর। নগরীর ফুসফুস হিসেবে পরিচিত এ দিঘির পাড়ে মানুষ আসে স্বস্তিভরে নি:শ্বাস নিতে। কিন্তু দিঘির পাড়ে হাটার জায়গাগুলোতে দিন দিন দোকানপাট বাড়ছে। দোকান আর হকারদের আধিপত্যে হারিয়ে যাচ্ছে ধর্মসগার পাড়ের নির্জনতা ও সৌন্দর্য। তবে, অবৈধ দোকান উচ্ছেদে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে সিটি করপোরেশন।

কুমিল্লা শহরবাসীর পানির কষ্ট দূর করার জন্য, ত্রিপুরার মহারাজা প্রথম ধর্মমাণিক্য ১৪৫৮ সালে ধর্মসাগর দিঘি খনন করেন। একটু স্বস্তি পাওয়ার জন্য রোজই এখানে ছুটে আসে হাজারো কর্মক্লান্ত মানুষ। স্বাস্থ্য সচেতন লোকজন সকালে ও সন্ধ্যায় ধর্মসাগরের পশ্চিমপাড়ে হেঁটে বেড়ান নির্মল বাতাসের প্রত্যাশায়। কিন্তু, অবৈধভাবে ফুটপাত দখল এবং হকারের সংখ্যা বেশি হওয়ায় নষ্ট হচ্ছে ধর্মসাগরের পরিবেশ।

ধর্মসাগর পাড়ে কোনো দোকান বরাদ্দ দেয়া হয়নি। অবৈধ দোকানগুলো দ্রুত উচ্ছেদ করা হবে বলে জানিয়েছেন, কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ।

কুমিল্লা নগরীর প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত ধর্মসাগরের আয়তন ২৩ একরেরও বেশি। কুমিল্লার সাথে জড়িয়ে রয়েছে ধর্মসাগরের প্রায় পৌনে ছ’শ বছরের ইতিহাস। এ দিঘির পরিবেশ ও ঐতিহ্য রক্ষায় প্রশাসন কার্যকর পদক্ষেপ নেবে এমনটাই প্রত্যাশা নগরবাসীর।

শেয়ার করুন।