ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল

0

ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। মেয়েদের এশিয়া কাপ টুর্ণামেন্টের নতুন চ্যাম্পিয়ন এখন বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠেই ভারতকে তিন উইকেটে হারিয়েছে সালমা-রুমানারা। আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ১১২ রান করে ভারত। এরপর শেষ বলে রোমাঞ্চিত জয় তুলে নেয় টাইগ্রেসরা। ম্যাচ সেরা হন রুমানা আহমেদ।

কুয়ালালামপুরের কিনরারা একাডেমি মাঠে যখন ইতিহাস গড়তে যাচ্ছিলো নারী ক্রিকেট দল তখন তার সাক্ষী হওয়ার অপেক্ষায় মাশরাফি, মুশফিক-তামিমরাও। কোটি ক্রিকেট ভক্তের মতো মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামের টেলিভিশনের পর্দায় চোখ তখন পুরো ক্রিকেট দলের। রোমাঞ্চকর সেই মূহুর্ত দারুণভাবে উদযাপন করেন তামিমরা।

ওইদিকে তখন ইতিহাস গড়া টাইগ্রেসরা উল্লাসে মাতোয়ারা। এশিয়া কাপে ভারতের গড়া সিংহাসনকে গুড়িয়ে দিয়ে সেই আসনে নাম লেখা হয় গেছে লাল-সবুজ বাংলাদেশের। ছেলেরা দু’বার ফাইনাল উঠে যেটা পারেনি সেটা করে দেখিয়েছেন সালমা-রুমানারা। ৬ বারের চ্যাম্পিয়ন ভারতকে হারিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন অধ্যায় লিখেছে নারী ক্রিকেট দল।

শেষ ওভারে যখন বাংলাদেশের দরকার ছিলো ৯ রান তখন অনেকের চোখেই ভেসে উঠছিলো ২০১২ সালে এশিয়া কাপের ফাইনালে সাকিবদের হারের সেই বেদনাদায়ক স্মৃতি। কিন্তু তখনও কোটি চোখের আস্থা রুমানা এবং সানজিদার ব্যাটে। প্রথম বলেই সানজিদা নেন এক রান। দ্বিতীয় বলে চার মেরে ব্যবধান কমান রুমানা।

৪ ও ৫ নাম্বার বলে পরপর দুই উইকেট হারানোর পর বাংলাদেশের ক্রিকেটে আরো একটি শিরোপা জয়ের স্বপ্ন ধূসর হয়ে যাচ্ছিলো। ম্যাচের ভাগ্য তখন দুলছিলো পেন্ডুলামের মতো।

শেষ বলে আসে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। জাহানারা আলম পপিং ক্রিজ স্পর্শ করার সাথে সাথেই কিনরারা একাডেমি মাঠ বাংলাদেশের লাল-সবুজ রঙ্গে রঙ্গীন হয়ে উঠে।

এর আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ১১২ রান করে ভারত। ইনিংস সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন অধিনায়ক হারামানপ্রীত। ১১৩ রানের লক্ষ্যে বাংলাদেশের শুরুটাও ছিলো দারুণ। ছোট ছোট সংগ্রহে শেষ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ন হয়েই মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশের মেয়েরা। সর্বোচ্চ ২৭ রান করেন নিগার সুলতানা।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন