আজ দেশের অনেক জায়গার হানাদার মুক্ত দিবস

0

আজ ময়মনসিংহের ভালুকা, ঝালকাঠি, নলছিটি, পিরোজপুর, মৌলভীবাজার, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী, কুমিল্লা, চাঁদপুর ও নড়াইলের লোহাগড়া হানাদার মুক্ত দিবস। দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর একাত্তরের এই দিনে এসব জেলা থেকে পিছু হটতে বাধ্য হয় হানাদাররা।

মুক্তিযুদ্ধের সাব-সেক্টর কমান্ডার মেজর আফসার উদ্দিন আহম্মেদের কাছে ভালুকা ক্যাম্পে পাক হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্যদিয়ে আজকের দিনেই মুক্ত হয় ময়মনসিংহের ভালুকা। দিবসটি উপলক্ষে প্রশাসন ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ দিনব্যাপী নানা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে।

আজ ঝালকাঠি ও নলছিটি হানাদার মুক্ত দিবস। বলা হয়ে থাকে একাত্তরে রাজধানী ঢাকার পরে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল ঝালকাঠি। ৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলাজুড়ে হত্যা, ধর্ষণ, লুট আর আগ্নি সংযোগসহ নারকীয় নির্যাতন চালায় হানাদাররা। এখানে কমপক্ষে ১০ হাজার মানুষকে হত্যা করা হয়েছে।

স্বাধীনতা যুদ্ধে ৯ নম্বর সেক্টরের একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা পিরোজপুর। ১৯৭১ সালের মহান এ মুক্তিযুদ্ধে জেলায় নিহত হয় ১০ থেকে ১২ হাজার মানুষ। সম্ভ্রম হারায় আরো অনেক মা বোন। দীর্ঘ নয়মাসের এ যুদ্ধ শেষে ডিসেম্বরের ৮ তারিখ পিরোজপুর হয় হানাদার মুক্ত।

একাত্তরের এই দিনে পুরো মৌলভীবাজার জেলা পাক হানাদার মুক্ত হয়। এর আগে ৬ ডিসেম্বর জেলার বড়লেখা,কুলাউড়া,রাজনগর,কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল হানাদার মুক্ত হয়। বড়টিলায় হানাদারদের সঙ্গে মুক্তিবাহিনীর যুদ্ধে মিত্র বাহিনীর ১২৭ সেনা নিহত হন।

মুক্তিযোদ্ধাদের প্রবল আক্রমনে একাত্তরের এই দিনে হানাদার মুক্ত হয় গাইবান্ধার পলাশবাড়ি, কুমিল্লা, চাঁদপুর, নড়াইলের লোহাগড়া।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন