আইএস-এর প্রতীক সম্বলিত টুপি দেশের অসাম্প্রদায়িক ভাবমূর্তি ধ্বংসের ষড়যন্ত্র

0

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামীর মাথায় আইএস-এর প্রতীক সম্বলিত টুপি দেশের অসাম্প্রদায়িক ভাবমূর্তি ধ্বংসের ষড়যন্ত্র বলে মনে করেন দেশের জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা। কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা সত্ত্বেও কিভাবে এই টুপি জঙ্গীরা ব্যবহার করেছে তা খতিয়ে দেখে, জড়িতদের কঠোর সাজা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। পাশাপাশি এই টুপি প্রমাণ করেছে কারাগারেও অপতৎপরতা চালাচ্ছে জঙ্গীরা। এসএ টিভিকে দেয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানালেন সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যরিস্টার শফিক আহমদ এবং অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

হলি আর্টিজান মামলার রায়কে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তায় আদালত অঙ্গনে প্রবেশ করতে হয় সবাইকে। ওই দিন ১০টা ২৩ মিনিটে প্রিজন ভ্যান থেকে আদালতে ঢুকানো হয় জঙ্গী রাকিবুল হাসান রিগ্যানকে। তবে ওই সময় তার মাথায় ছিল না কোন টুপি। তবে আদালতের গারদ খানা থেকে ১২টার সময় যখন তাকে বের করা হয়, তখন তার মাথায় দেখা যায় আইএস এর প্রতীক সম্বলিত টুপি। এতে সমালোচনার ঝড় ওঠে দেশজুড়ে ।

সবশেষ রোববার উচ্চ আদালতও যোগ দেয় ওই টুপি কেন্দ্রিক সমালোচনায়। এ সময় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ্যে হাইকোর্টের প্রশ্ন শর্ষে মাঝেই কি ভূত আছে?

এমন পরিস্থিতিতে জঙ্গী রিগ্যানের টুপি পড়ার উদ্দেশ্য নিয়ে নিজের পর্যবেক্ষন তুলে ধরেন সাবেক এই আইনমন্ত্রী। সাবেক আইনমন্ত্রী সঙ্গে এ বিষয়ে সহমত পোষন করেন অ্যাটর্নি জেনারেল। 

কাদের গাফিলতিতে এই ঘটনা ঘটল তদন্ত করে সেই ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন বলেও মত দেন এই দুই আইন বিশেষজ্ঞ। আইএস নিজেই ইসলামের শত্রু এবং বাংলাদেশে তাদের কোন অস্তিত্ব নেই বলেও দাবী করেন এই বিশেষজ্ঞ।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন