অযত্ন অবহেলায় মীর মোশাররফ হোসেনের বাস্তভিটা

0

অযত্ন অবহেলায় বাংলা সাহিত্যের অমর কথা সাহিত্যিক বিষাদ সিন্ধু রচয়িতা মীর মোশাররফ হোসেনের কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার লাহিনীপাড়া বাস্তভিটা। ৪০ একর জমির মধ্যে দখল হয়ে গেছে ২৯ একর। এখন আছে শুধু বাস্তভিটা আর স্ত্রীর কবরটি। প্রতিবছর জন্মবার্ষিকী আর মৃত্যুবার্ষিকীতে কিছু আয়োজন ছাড়া সারা বছর কেউ কোনো খোঁজ খবর রাখে না।

১৮৪৭ সালের ১৩ ই নভেম্বর বাংলাসাহিত্যের অমর কথা সাহিত্যিক মীর মোশাররফ হোসেনের জন্ম কুমারখালীর লাহিনীপাড়ায়। পারস্যের কবি ফেরদৌসী রচিত শাহানামার মত মীর মোশাররফ হোসেনও কারবালার বিষাদের কাহিনী অবলম্বনে রচনা করেছিলেন, ‘বিষাদ সিন্ধু’। তিনি একাধারে উপন্যাস, নাটক ও প্রবন্ধসহ প্রায় ৭৪টি গ্রন্থ রচনা করেছেন। অথচ কালজয়ী এই সাহিত্যিকের বাস্তভিটাটি অযত্ন অবহেলা নিশ্চিহ্ন হওয়ার পথে। তাঁর ৪০ একর জমির মধ্যে দখল হয়ে গেছে ৩৯ একর।

মীর মশাররফের বাস্তুভিয়ায় দেখার মতো তেমন কিছুই নেই। রাস্তাঘাটেরও বেহাল দশা।

এবার তাঁর জন্মবার্ষিকীতে জেলা প্রশাসন ১৩ ও ১৪ নভেম্বর আয়োজন করেছে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মেলা। তবে দখল হয়ে যাওয়া মীরের জমি উদ্ধারে উদ্যোগ নেয়ার কথা জানালেন জেলা প্রশাসক।

মীর মোশাররফ হোসেনকে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে শিগিগিরই নেয়া হবে কার্যকর উদ্যোগ, এমন প্রত্যাশা কুষ্টিয়াবাসীর

শেয়ার করুন।