অন্তত দুইশ’ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ

0

উচ্চ মাধ্যমিকের চূড়ান্ত পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়নে গাফিলতির অভিযোগে অন্তত দুইশ’ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ। খাতা মূল্যায়নের পর নম্বর গণনায় ভুল করায় এসব পরীক্ষককে এক বছরের জন্য সাসপেন্ড করা হবে। বিশ্লেষকরা বলছেন, কতিপয় পরীক্ষকের দায়িত্বহীনতার কারণে শিক্ষার্থীদের জীবন অনিশ্চয়তায় পড়ছে।

চলতি বছরের ১৭ জুলাই সারাদেশে এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়। এর পরদিন থেকে ২৪ জুলাই পর্যন্ত ফল পুনঃ নিরীক্ষণের আবেদন জমা নেয় রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ। ওই সময়ের মধ্যে ৩৪ হাজার ৭১৫টি উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন জমা পড়ে। খাতা চ্যালেঞ্জের পর পাশ করেছে ৬৬ পরীক্ষার্থী। জিপি-৫ পেয়েছে ৪৪ জন। আর গ্রেড উন্নতি হয়েছে ৩৬৬ জনের। এর পেছনে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষকদের গাফিলতিকেই বড় করে দেখছে শিক্ষা বোর্ড।

খাতা পুনঃ মূল্যায়ণে এ বছর সবচে’ বেশি আবেদন জমা পড়ে ইংরেজি প্রথমপত্রে ৫ হাজার ২৬২ ও ইংরেজি দ্বিতীয়পত্রে ৪ হাজার ৬২২টি। এর বাইরে বেশি অসন্তোষ ছিল পদার্থবিজ্ঞান প্রথমপত্রের ফল নিয়ে। শিক্ষা বোর্ডে চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, পরীক্ষকদের অদক্ষতার কারণেই এমন ঘটনা। এদিকে, বিশ্লেষকরা বলছেন, দক্ষ পরীক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে আরো সতর্ক হতে হবে বোর্ড কর্তৃপক্ষকে। এবারের এইচএসসি পরীক্ষার খাতা দেখেছেন প্রায় আট হাজার পরীক্ষক। এদের মধ্যে ২০০ জন পরীক্ষকের খাতায় নম্বর লেখা বা গণনায় ভুল পাওয়া গেছে।

শেয়ার করুন।

উত্তর দিন