বাংলাদেশি শাক-সবজী, মাছ, মসলার প্রথম দোকান ব্রিক লেনে

0

ব্রিটেনে বাংলাদেশি শাক-সবজী, মাছ, মসলার প্রথম দোকান ব্রিক লেনে। ব্রিটেনে বাংলাদেশিদের ইতিহাস লেখা হলে, তাজ স্টোরসের নাম হয়তো থাকতেই হবে। কারণ আগস্টে তাজ স্টোরস ৮২ বছর পূর্ণ করবে। পূর্ব লন্ডনের ব্রিক লেনে জামাল খালিকের পরিবারের মালিকানাধীন এই দোকানটির সঙ্গে ব্রিটেনের প্রবাসী বাংলাদেশিদের সম্পর্কও সেই পুরনো।

জামাল খালিকের বড় চাচা আব্দুল জব্বার কাজ করতেন ব্রিটিশ নৌবাহিনীতে। ত্রিশের দশকে যে জাহাজে তিনি কাজ করতেন সেটি ইংল্যান্ডের একটি বন্দরে নোঙর করার পর জাহাজ থেকে নেমে পড়েছিলেন তিনি। এরপর ঘুরতে ঘুরতে পূর্ব লন্ডনে আসেন। সে সময় পূর্ব লন্ডন থাকতো ইহুদি ও আইরিশরা। আর চামড়া ও পোশাকের কারখানাও ছিল এখানে। এই কারখানায় বছর দুয়েক কাজ করেন আব্দুল জব্বার। পরে তার সঙ্গে পরিচয় হয় স্থানীয় আইরিশ তরুণী ক্যাথলিনের। এরপর প্রেম এবং পরে তারা বিয়েও করেন। সেই আইরিশ মেয়েটি তাকে ব্রিক লেনে ছোট্ট একটি মুদিখানার দোকান খুলে দেন’ ১৯৩৬ সালে।

প্রথমে আলু-পেঁয়াজসহ স্থানীয় আইরিশ ও ইহুদিরা ব্যবহার করে এমন কিছু পণ্য বিক্রি শুরু করেন তারা। সত্তরের দশকে ব্রিক লেন ও আশপাশের এলাকায় বসতি গড়তে শুরু করে বাঙালিরা। আর এরপরই বাংলাদেশ থেকে শাক-সবজি, মাছ ও মসলা আমদানি শুরু করে তাজ স্টোরস। এর মূল উদ্যোগও সেই আইরিশ নারী।

একসময় নোংরা, গন্ধ আর অন্ধকার ব্রিক লেনে প্রতি রোববার বর্ণবাদিরা হামলাসহ পেট্রোল বোমাও ছুড়তো বলে জানালেন তাজ স্টোরসের কর্ণধার।

তাজ স্টোরস থেকে ব্যবসা অনেক বাড়িয়েছেন জামাল খালিক ও তার ভাইয়েরা। কনস্ট্রাকশন কোম্পানিও খুলেছেন। বাংলাদেশে এনআরবি ব্যাংক নামে একটি বেসরকারি ব্যাংকের অংশীদারও তারা। তাদের পৈতৃক বাড়ি মৌলভিবাজার।

Share.

Leave A Reply